“পুলিশের উর্দি পড়লেও হাটইকড়া গ্রামে তাঁরা কাজ করছেন তৃণমূলের হয়েই ,” অভিযোগ গ্রামবাসীদের

0

Last Updated on

পুলিশের উর্দি পড়লেও তৃণমূলের হয়েই কাজ করছে পুলিশ কর্মীরা | তাদের হুমকি থেকে বাদ পড়ছেনা গ্রামের মহিলারাও |ফাঁকা হয়ে যাচ্ছে গ্রামের বাড়িগুলি | মারাত্মক এই অভিযোগ ওঠালেন পাড়ুইয়ের হাটইকড়া গ্রামের বাসিন্দারা | শনিবারের রাজনৈতিক সংঘর্ষের পর ৪৮ ঘন্টা কাটার পরও পাঁড়ুই থানার অন্তর্গত ওই হাটইকড়া গ্রামের বহু বাড়ি পুরুষশূন্য । এমনকি মধ্যবয়স্ক যুবকরা, স্কুল পড়ুয়ারাও গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে অন্যত্র । গ্রামে রয়েছেন কেবলমাত্র মহিলারা, তারাও ভয়ে গৃহবন্দী । স্কুল পড়ুয়ারা আতঙ্কে বন্ধ করেছে স্কুল যাওয়া ।

এ আতঙ্কের পরিপ্রেক্ষিতে গ্রামের মহিলারা জানান, “পুলিশ এখন যাকে চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছে তাকেই তুলে নিয়ে যাচ্ছে । সেই ভয়ে আমাদের গ্রামে কোন পুরুষ মানুষ নেই । ” দিন আনা দিন খাওয়া মানুষ গুলোর বেঁচে থাকাই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে বলছেন মহিলারা | স্বাভাবিক কাজ কর্ম সবই বন্ধ | উপার্জন না হলে দিন চলবে কি করে,সেই ভাবনায় রাতের ঘুম উড়েছে মহিলাদের |

সিউড়ি ২ নং ব্লকের বিজেপি সভাপতি পবন বাগদি দাবি করেছেন, “গ্রামের এই অবস্থার জন্য দায়ী একমাত্র পুলিশ । পুলিশের মদত এবং পুলিশের সন্ত্রাসের জন্য ওই জায়গাতে এত বড় একটা অশান্তি ঘটল বলে তার অভিযোগ । পুলিশ যদি সক্রিয় থাকত তাহলে ওই গ্রামে বা অন্য জায়গায় এই অশান্তি হত না ।”

ওই বিজেপি নেতা পুলিশের সক্রিয়তা নিয়ে প্রশ্ন তোলা ছাড়াও তিনি পুলিশের বিরুদ্ধে গ্রামের মহিলাদের ভয় দেখানোর মারাত্মক অভিযোগ এনেছেন ।

ঘটনার সূত্রপাত গত সপ্তাহের বৃহস্পতিবার সন্ধ্যাবেলায় । সনৎ দাস নামে এক বিজেপির বিস্তারকের বাড়িতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে হামলা চালানোর অভিযোগ আনে বিজেপির ওই বিস্তারক । তারপর থেকেই দফায় দফায় উত্তপ্ত হতে থাকে পাঁড়ুই থানার অন্তর্গত হাটইকড়া গ্রাম । শনিবার এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপি পথ অবরোধ করে। তারপর পরিস্থিতি আরও জটিল হয় । পথ অবরোধ করে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা ফিরে যাওয়ার সময় কয়েকজন তৃণমূল কর্মী সমর্থককে হাতের নাগালে পেয়ে বাঁশ লাঠি দিয়ে তাদের উপর চড়াও হয়। পুলিশের সামনেই তাদেরকে মারধর করা হয় । ঘটনায় ৫ থেকে ৬ জন তৃণমূল কর্মী সমর্থক গুরুতর আহত অবস্থায় সিউড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি।

এরপরই পাঁড়ুই থানার পুলিশ অতি সক্রিয় হয়ে ওঠে বলে স্থানীয় বিজেপি নেতাদের অভিযোগ । শনিবার দিনভর এবং রাতে অভিযান চালিয়ে ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে যুযুধান দু’পক্ষের ১৪ জনকে আটক করা হয় । তাদের সিউড়ি আদালত ১০ জনের ১৪ দিনের জেল হেফাজত দেয় এবং চারজনের চার দিনের পুলিশ হেফাজত যায় । থমথমে এই এলাকায় কবে ফিরবে শান্তি সেদিকেই চেয়ে আছে পাড়ুইয়ের হাটইকড়া গ্রামের বাসিন্দারা |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here