অন্য পেশার আড়ালে নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন জেএমবির কাজ করত ধৃত জঙ্গী আব্দুল বারি

0

Last Updated on

জামাতের জাল যে গোটা রাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছে তা আগেই টের পাওয়া গিয়েছিল | এবার একের পর এক জেএমবি সদস্য গোয়েন্দাদের জালে জড়ানোয় বেশ অস্বস্তিতে রাজ্য সরকার,মনে করছেন বিরোধীরা | কয়েকদিন আগেই জেএমবির মূল পান্ডাতকে ভিন রাজ্য থেকে ধরে আনে এসটিএফ | তাকে জেরার মাধ্যমে উঠে আসে নানা তথ্য | মঙ্গলবারই ধরা পড়ে জামাত-উল- মুজাহিদিন জঙ্গী গোষ্ঠীর পান্ডা আবদুল বারি | যদিও তারপরও উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহারের কাশিমপুরের বাসিন্দা ধৃত জে এম বি জঙ্গি আবদুল বারির পরিবার নাকি বিশ্বাসই করতে পারছেননা এমন কাজের সঙ্গে যুক্ত তাদের ঘরের ছেলে । এস টি এফের জালে ধরা পড়ার খবর পেয়ে শোকে মূহ্যমান ধৃত জঙ্গি আবদুল বারির স্ত্রী । খবর ছড়িয়ে পড়তেই কাশিমপুর গ্রামে দেখা দিয়েছে চাপা আতঙ্ক ।

জে এম বি জঙ্গি সংগঠনের দুই সক্রিয় সদস্যকে মঙ্গলবার মালদার সামসি থেকে গ্রেপ্তার করল এস টি এফ । জানা গিয়েছে,ধৃতদের বাড়ি উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহার থানা এলাকায় । ধৃত জঙ্গিদের মধ্যে একজনের নাম আবদুল বারি । আব্দুল বারি ইটাহার থানার কাশিমপুর গ্রামের বাসিন্দা । আব্দুল ইটাহারে একটি প্যাথলজিক্যাল ল্যাবরেটরিতে কাজ করত । পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ৯ দিন ধরে নিখোঁজ ছিল আবদুল বারি । পরিবারের পক্ষ থেকে ইটাহার থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরিও করা হয়েছিল ।

কিন্তু আবদুল বারি ও তার সঙ্গী নিজামুদ্দিন উত্তর দিনাজপুর জেলার ইটাহারের এই দুই বাসিন্দা আদতে বহুদিন থেকেই জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে যুক্ত ছিল বলে জানা গিয়েছে । সূত্রের খবর, জামাত-উল- মুজাহিদিনের আমের সালাউদ্দিনের কাছ থেকে নির্দেশ এসেছিল উত্তর দিনাজপুর জেলায় মডিউল তৈরি করার । এই মফিউলের সঙ্গে যোগাযোগ রাখত জামাত-উল-মুজাহিদিন ইন্ডিয়ার আমের ইজাজও । উত্তর দিনাজপুরের এই মডিউলের দুই পান্ডা হল ইটাহারের আবদুল বারি ও নিজামুদ্দিন । এলাকার টার্গেট করা যুবকদের জেহাদের দাওয়াত দিয়ে তাদের মগজ ধোলাই করে তাদের জঙ্গীর খাতায় নাম লেখাত আবদুল বারি ও নিজামুদ্দিন ।

এদিকে স্বামী আবদুল বারি যে এতবড় একটি জঙ্গী সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত থেকে গোপনে এইসব কাজ করছে তার বিন্দু বিসর্গ জানতে পারেননি তার পরিবারের লোকেরা ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here