খোদ জেলাশাসকের বাংলোর সীমানায় ব্যাপক বোমাবাজির পিছনে কি বালি মাফিয়ারা ?

0

Last Updated on

বীরভূমের জেলাশাসকের বাংলোর সীমানার ভিতরেই বোমাবাজি ! এক-আধটা নয়, বোমা পড়েছে আট-আটটি । বীরভূমের সিউড়ির এমন ঘটনা প্রকাশ্যে আসতে রীতিমত আলোড়ন পড়ে গিয়েছে | চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জেলার প্রশাসনিক স্তরেও |

ঘটনাটি ঘটে সোমবার গভীর রাতে | রাত তখন দুটো-আড়াইটে, সিউড়ির গা ঘেঁষে চলে যাওয়া ৬০ নং জাতীয় সড়কের উপরই রয়েছে বীরভূমের জেলাশাসকের বাংলো । কড়া নিরাপত্তায় মোড়া । জাতীয় সড়কের ধার ঘেষেই বাংলোর শেষ সীমানা বরাবর চলে গিয়েছে প্রাচীর । আর সেই প্রাচীরের ভিতরেই পড়েছে বোমাগুলি ।

আটটি জায়গায় মিলেছে বোমার গর্ত, সূতলি । সোমবার গভীর রাতের ঘটনার পর পুলিস-প্রশাসন বিষয়টা নিয়ে প্রকাশ্যে খুব একটা হেলদোল দেখাতে না চাইলেও খবর চাউর হয়ে যায় সর্বত্র । সংবাদ মাধ্যমের কর্মীরা গিয়ে দেখতে পান জাতীয় সড়ক থেকে যে মূল ফটক দিয়ে জেলাশাসক বাংলোয় ঢোকেন তার আশেপাশেই ফেটেছে বোমাগুলি । ঘটনাস্থলে এদিন দেখা যায় বম্ব স্কোয়াডকেও । তারা ঘটনাস্থল পুঙ্খানুপুঙ্খ পর্যবেক্ষণ ছাড়াও নমূনা সংগ্রহ করার কাজ করে ।

বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসুকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি শুধু বলেন, “রাতের বেলায় বাংলোর বাইরের দিক থেকে শব্দ শুনতে পেয়েছিলাম । পুলিস বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ।” হালকা চালে বিষয়টি নিয়ে কথা বললেও এতে প্রশাসন যে উদ্বিগ্ন তা বলাই বাহুল্য | কারণ খোদ জেলাশাসকের বাংলোর গায়ে বোমাবাজি আর কোনোদিন হয়েছে কি না মনে করতে পারছেন না কেউই । সঙ্গে সঙ্গে প্রশ্নও উঠেছে কে বা কারা ঘটালো এই ঘটনা ?

বীরভূমের পুলিস সুপার শ্যাম সিং জানিয়েছেন, “ঘটনাস্থলে পুলিস আধিকারিকরা গিয়েছেন । তদন্ত শুরু হয়েছে ।” বাইরে যে কথাই হোক না কেন অন্দরের গুঞ্জন অন্য কিছুই | দিন কয়েক ধরেই জেলার বিভিন্ন প্রান্তে অবৈধ বালি কারবারের বিরুদ্ধে অভিযানে নেমেছে জেলা প্রশাসন । যার নেতৃত্বে রয়েছেন স্বয়ং জেলাশাসক । বালি মাফিয়ারা নিয়ম ভেঙে মজুত করা বিপুল পরিমাণ বেআইনি বালি নিজে হাতে নাতে ধরে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন জেলাশাসক । যার জেরে মামলা রুজু হয়েছে একাধিক । বহু বালি মাফিয়াকে ধরপাকড়ের জন্য শুরু হয়েছে পুলিশি অভিযান । এই অভিযানের ফলে বালির চোরাকারবারীদের কোটি কোটি টাকার মুনাফা জলে যাওয়ার আশঙ্কা থেকেই বালি মাফিয়ারা এই কাজ ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে কেউ কেউ মনে করছেন ।

যদিও সোমবারের ঘটনার পর জেলাশাসকের নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা হয়েছে কি না তা নিয়ে খোলসা করতে চান নি পুলিস সুপার । তবে এদিন জেলাশাসকের গাড়ির সামনে নিরাপত্তারক্ষী বেষ্টিত বাড়তি একটি এসকর্ট গাড়ি নজর এড়ায়নি সাংবাদিকদের |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here