বিসর্জনের দিন দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে দুর্গাপ্রতিমা ভাঙার জেরে তালিবপুরে ১৪৪ ধারা জারি, সাংসদকে ঢুকতে মানা পুলিশের

0

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক : আবারও মূল স্রোতের দৈনিক সংবাদপত্রে কোন খবর ছিল না তালিবপুরের ঘটনা | জানা যাচ্ছে সেখানে দুর্গাপুজোকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে | বিসর্জনের দিন তার জেরে নাকি ভেঙে পড়ে দুর্গা প্রতিমার মূর্তি | সালার থানার অন্তর্গত তালিবপুরে দশমীর সন্ধ্যায় প্রতিমা নিরঞ্জনকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে উত্তজনা ছড়ায় এলাকায় | এত বড় ঘটনা ঘটলেও তার কিন্তু কোন খবরই পাওয়া যায়নি অন্যান্য মাধ্যমগুলিতে | কারা ভাঙল ,কেন ভাঙলো ,কীভাবে ভাঙলো এই সকল প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে যাওয়ার কোন অবকাশও অবশ্য সেখানে নেই | কারণ ইতিমধ্যেই এখানে জারি করা হয়েছে নিষেধাজ্ঞা | গোটা এলাকায় ১৪৪ধারা জারি করে সাধারণের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে | সেই খবরও নেই কোথাও |

আরও পড়ুন: হুগলির পর দুর্গাপুর গোষ্ঠী সংঘর্ষে জেরবার শাসক দল https://risingbengal.in/politics/hoogly-r-por-durgapur-goshthi-songhorshe-jerbar-shashok-dol/

সেই এলাকার পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখতে বৃহস্পতিবার দুপুরে মাননীয় সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী তালিবপুরের উদ্দেশ্যে রওনা হন | সেইসময় সালার থানার পুলিশ সালার কলেজ মোড়ের কাছে সাংসদ তথা কংগ্রেসের সংসদীয় বিরোধী দলনেতা অধীর রঞ্জন চৌধুরীর গাড়ি আটকায় বলে অভিযোগ | বাধা দেওয়া হয় তাঁকে ওই এলাকা পরিদর্শনে যেতেও | তালিবপুরে ১৪৪ ধারা জারি করার কারণে তাঁকে ওখানে যেতে নিষেধ করেন রাজ্য পুলিশের কর্মীরা | পথ আটকানোর সঙ্গে সঙ্গে গাড়ি থেকে নেমে পড়ে তাঁর স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গীতে জানান অবিলম্বে ১৪৪ ধারা তোলা না হলে থানার সামনে অনশনে বসবেন তিনি | প্রশ্ন করেন কেন স্বাভাবিক জীবন যাপন পর্যদুস্ত করছে সরকার ? সেখানেই সাসংদের অনুগামীরা স্লোগান দিতে থাকে পুলিশের বড়বাবুকে ঘিরে | যদিও অনশনে বসার হুমকিতেও টলানো যায়নি সালার থানার পুলিশকে । অবশেষে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসতে হয় মাননীয় সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরী কে । তবে প্রশ্ন, কি এমন ঘটল যে তালিবপুরের ঘটনাকে লোক নজরের আড়ালে নিয়ে যেতে জারি করতে হল ১৪৪ধারা |

আরও পড়ুন: বাংলাদেশের জেলে হিন্দু আইনজীবীর সুপরিকল্পিত হত্যায় চুপ কেন সেখানকার সরকার? https://risingbengal.in/international/bangladesher-jele-hindu-ainjibir-mrityute-chup-kano-sarkar/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here