কোরোনা সন্দেহে ঘরবন্দী গবেষকের পরিবার,আতঙ্কে স্থানীয় বাসিন্দা

0
corona affected family in bengal

Last Updated on

নোবেল করোনা ভাইরাস আতঙ্কে গৃহবন্দী গবেষক পরিবার । অপরদিকে এলাকা ছাড়ছে সাধারণ মানুষ । এই আতঙ্কে জেরে এলাকায় শুনশান । ঘটনাটি ঘটেছে জামুরিয়া থানার অন্তর্গত চিচুড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের আর এন কলোনিতে। বৃহস্পতিবার রাত থেকে বিষয়টি জানাজানি হতেই আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা । যদিও স্বাস্থ্য দফতরের ওই যুবকের শরীরে কোন ভাইরাস এখনও পর্যন্ত নেই বলে জানান স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা । চীনে পাঠরত যুবক কৌশিক পাল নিজের ইসিএল আবাসন ছেড়ে অন্য একটি ইসিএল আবাসনে তালাবন্ধ অবস্থায় রয়েছে । তার পিতা সুবোধ পাল পেশায় ইসিএলের ইলেকট্রিশিয়ান বাইরে থেকে খাবার দিচ্ছেন । এরপরে ব্যাপারটি জানাজানি হতেই এলাকার মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে । তারা সন্দেহ করেন ওই যুবকের শরীরে করোনা ভাইরাস রয়েছে ।

আরো পড়ুন :বিজেপির হাত থেকে তৃণমূলের পার্টি অফিস উদ্ধার ঘিরে নতুন করে অশান্তি ও উত্তেজনা ভাটপাড়া

এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে । এরপরেই ওই যুবকের পিতা সুবোধ পাল তার ছেলেকে এনে নিজের বাড়িতে রাখেন । স্থানীয় বাসিন্দা সুকুমার পাল, স্বপন ঘোষ জানান ওই পরিবারের চালচলন খুবই সন্দেহজনক । যেভাবে চীন ফেরত গবেষক ওই যুবককে গৃহবন্দি করে রেখেছে তাতে তাদের সন্দেহ হচ্ছে ওই যুবক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত । বাইরের কোন লোককে তাদের বাড়ির ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না । এর ফলে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে । কিছু মানুষ এই কলোনির আবাসন ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছেন । এলাকার ছাত্র ছাত্রীরা স্কুলে যেতে পারছেন না । গৃহ শিক্ষকরা কেউ এই কলোনিতে পড়াতে আসছেন না ।

স্বাভাবিক জীবনযাপন ব্যাহত হচ্ছে । তারা প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানান খুব দ্রুত ওই পরিবারকে হসপিটালের আইসোলেশন এ রাখতে হবে । জেলা স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রতিনিধিদলের সদস্য তথা চিকিৎসক দেবিদাস মুখার্জী জানান তারা সমস্ত রকম পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেছেন এখনো পর্যন্ত কোন ভাইরাসের কোনো লক্ষণ নেই । তবে আরো কিছুদিন ওই গবেষক যুবক এবং তার পরিবারকে বাড়ি থেকে না বের হওয়ার জন্য জানিয়ে এসেছেন । চিচুড়িয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান বিশ্বনাথ সাঙ্গুই জানান তার পরিবারকে আরো অন্ততপক্ষে পাঁচ থেকে ছয় দিন ঘর থেকে না বেরোনোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ।

আরো পড়ুন :‘তৃণমূল জমানায় পশ্চিমবঙ্গে নির্দোষ লোকেদের মারা হয়’ সংসদে সৌগত রায়ের উদ্দেশ্যে, মোদী

চীন থেকে ফেরত গবেষক যুবক কৌশিক পাল জানান চলতি মাসের ৫ তারিখে তিনি চীন থেকে এসেছেন । সেখানকার পরিস্থিতি খুবই ভয়ংকর এবং সেখানেও মানুষজনকে ঘর থেকে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না । তাই তিনি সেই দেশ ছেড়ে নিজের বাড়িতে এসেছেন। প্রথমেই তাকে কলকাতার এয়ারপোর্ট পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর বেলেঘাটা আইডি হসপিটাল পাঠানো হয়েছিল। চিকিৎসকরা তাকে সেখানে ১৪ দিন থাকার কথা বলেছিলেন । কিন্তু তিনি সেখানে থাকতে চাননি । তাই ডাক্তারদের পরামর্শ মতো তিনি বাড়িতে এসে আইসোলেশন এখানে আছেন । কিন্তু গতকাল থেকে যেভাবে তাদের উপর মানসিক অত্যাচার চালানো হচ্ছে তাতে তারা আতঙ্কিত। তিনি সাধারণ মানুষকে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানান |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here