ডাইনি সন্দেহে মারধর কালনার এক গৃহবধূকে ; অভিযোগ দায়ের কালনা থানায়।

0
witch story and superstition of kalna

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক ; ০১লা অক্টোবর ২০১৯ : এই একবিংশ শতকে দাঁড়িয়ে মানুষ যেখানে স্বপ্ন দেখছে চাঁদে জমি কেনার, সেখানে কিছু মানুষ আজো শিকার সেই অন্ধ কুসংস্কারের।

পূর্ব বর্ধমানের কালনার ভৈরব নালা গ্রামের কিছু যুবক গ্রামের মোড়লের ডাকা সালিশি সভায় ডাইনি সন্দেহে নিগ্রহ করে বকুল টুডু নামে গ্রামের এক গৃহবধূকে। এক কলেজ ছাত্রী এই ঘটনার প্রতিবাদ করে এবং বলে ডাইনি বলে কোন কিছুর অস্তিত্ব নেই এই সবই অন্ধ কুসংস্কার। এরজন্য ওই কলেজছাত্রীকেও নিগ্রহ করে উত্তেজিত যুবকের দল।

আরও পড়ুন:মালদার ইংরেজবাজারে যৌন নির্যাতনের শিকার সপ্তম শ্রেণীর এক ছাত্র।

গত কয়েকদিন ধরে ভৈরব নালা গ্রামের বেশ কয়েকজন জ্বরে ভুগছিল। একসাথে অনেকে জ্বরে ভোগাটা স্বাভাবিক মনে হয়নি গ্রামবাসীর। এর কারণ হিসেবে গ্রামের কিছু মহিলা ও পুরুষ ওই গ্রামেরই এক গৃহবধূ বকুল টুডুর দিকে ডাইনি সন্দেহে আঙ্গুল তোলে। এই মর্মে সোমবার রাতে ওই গ্রামের মোড়ল মঙ্গল টুডু একটি সালিশি সভা ডাকেন। এই সভা চলাকালীন উত্তেজিত কিছু যুবক বকুল দেবীর উপর হামলা চালায়। অকথ্য গালিগালাজ এবং মারধর করা হয় বকুল টুডুকে। এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে বকুল দেবীর একমাত্র কন্যা,যে কিনা পূর্ব বর্ধমানের মেমারি কলেজের একজন ছাত্রী। সে বলে আজকের যুগে ডাইনি নেহাতই একটি কুসংস্কার মাত্র,বাস্তবে যার কোনো অস্তিত্ব নেই। এতে উত্তেজিত ওই যুবকরা বকুল দেবীর কন্যাকেও মারধর করতে পিছপা হয়নি। ঘটনায় মোট তিনজন আহত হয়। আহত তিনজনকে গ্রামবাসীরা উদ্ধার করে কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করে।

আরও পড়ুন: বাড়ি ফিরতে চান মায়ানমারের রোহিঙ্গা হিন্দু শরনার্থীরা

এই সম্পূর্ণ ঘটনার লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় কালনা থানায়। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ওই যুবকদের সন্ধানে ভৈরবনালা গ্রামে গেলে, অভিযুক্ত যুবকেরা পালিয়ে যায়। কালনা থানার পুলিশ ওই অভিযুক্ত যুবক জারি রেখেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here