মহিলাকে বিবস্ত্র করে সালিশি সভায় বেধড়ক মারের বিধান তৃণমূল নেতার

0

Last Updated on

শ্বশুরের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনেছিলেন এক গৃহবধূ| গুরুতর সেই অভিযোগ স্বভাবতই মানতে নারাজ গোটা পরিবার| বিগত দুমাস ধরে এই শারীরিক অত্যাচারের প্রতিবাদ করেছিলেন ওই গৃহবধূর স্বামীও| এ নিয়ে শ্বশুরবাড়ির লোকেদের সঙ্গে রোজই চলত অশান্তি| তারই পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার ডাকা এক সালিশি সভায় গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে মারার বিধান দেয় স্থানীয় তৃণমূল নেতা| ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপাড়া থানার কোন্নগর কানাইপুর রায়পাড়ায়। স্থানীয় তৃণমূল নেতা তথা কোন্নগর পুরসভার কর্মী সনৎ কর সোমবার সন্ধ্যায় ওই হঠাৎই ওই দম্পতিকে না জানিয়ে পরিবারের বাকী সদস্যদের নিয়ে একটা সালিশি সভার আয়োজন করে|অভিযোগকারী গৃহবধূর স্বামী বলেন,তারা সালিশি সভার ব্যাপারে কিছুই জানতেন না| সেসময় তাঁকে কাজ থেকে ওই সভায় ডেকে পাঠান তৃণমূলের নেতা সনৎ কর| সালিশি সভা চলাকালীন শুরু হয় দুপক্ষের মধ্যে বচসা। অভিযোগ, এরপরই সনৎ কর ও তার সঙ্গীরা ওই গৃহবধূ ও তাঁর স্বামীকে বেধড়ক মারধর করে। এতেই থেমে ছিলেন না সনৎবাবুরা। ওই গৃহবধূর অভিযোগ,এরপরই তাঁকে বিবস্ত্র করে মারা হয় রাস্তায় সর্বসমক্ষে| সোমবার গভীর রাতেই শারীরীক ও মানসিকভাবে সম্পূর্ণ বিধ্বস্ত ওই দম্পতি হাসপাতালে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা করান। এরপর কানাইপুর বিট হাউসে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন তাঁরা| যদিও এ দিন অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা সনৎ করের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও এ ব্যাপারে তার কোন প্রতিক্রিয়াও মেলা সম্ভব হয়নি| প্রশ্ন উঠছে আইনের পথে না গিয়ে কেন ওই নেতা নিজেই এই ঘটনার বিচার করতে গেলেন? প্রকাশ্যে না বললেও এই পুরো ঘটনাটি মোটেই ভালোভাবে নেননি এলাকার মানুষ| অসহায় দম্পতি যদিও এর শেষ দেখতে চান|আর চান স্থানীয় এই নেতাদের প্রকৃত শাস্তি দিতে|

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here