ধর্মান্তকরণ ও সন্ত্রাসের মধ্যে সম্পর্কের খোঁজে ব্রিটিশ পুলিশ

0

Last Updated on

ব্রিটিশ পুলিশের তথ্য বলছে,জেহাদীর সংখ্যা বাড়ছে ইংল্যান্ডে | পাল্লা দিয়ে বাড়ছে নিংসঙ্গ মানুষের সংখ্যাও | আর তাদেরকেই নিশানা বানিয়ে জেহাদে উদ্বুদ্ধ করছে জেহাদীরা |

ইংল্যান্ডের নর্মান্সহার্স্টরের বাসিন্দা ক্লিন্টন হিক | প্রতিবেশীরা জনাচ্ছেন কয়েকদিন আগেই তিনি ধর্মান্তকরণ করে খ্রীষ্ট্রান ধর্ম পরিবর্তন করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন | ব্রিটেনবাসী ক্লিন্টনকে সেখানকার পুলিশ তুলে নিয়ে যায় অবৈধ ভাবে মিলিটারি গ্রেনেডস,বন্দুক সহ সন্দেহজনক রাসায়নিক পদার্থ রাখার অভিযোগে | ঘটনায় অবাক তাঁর প্রতিবেশীরা | হিকের বাড়ির পাষেই থাকা এক ব্যক্তির কথায়, হিক মিশুকে ছিলেন | দোতলা বাড়ির উপরের সিঁড়িতে দাঁড়িয়ে কথা বলতেন তার সঙ্গে | কিন্তু হিক নিজের বিষয়ে কিছু তেমন বলতেন না |এলাকাবাসী শুধু এই টুকুই জানেন যে সপ্তাহের মধ্যে শুক্রবার সকালে তার বাড়ির সামনে একটি গাড়ি দাঁড়াত| কেউ আসতেন তাতে ক্লিন্টন হিককে নর্মানউইচের একটি মসজিদে নামাজ পড়তে নিয়ে যাওয়ার জন্য |

ক্লিন্টনের সঙ্গে থাকতেন ১৫টি বিড়ালকে নিয়ে | তাদেরকে নিয়ে বেরোতেন | দিনে প্রতিবারই বেরোনোর সময় একটি নোটবুক হাতে দেখা যেত | তাতে তিনি কোন কোন বিড়ালকে নিয়ে গেলেন বাইরে তা লেখা থাকত বলে জানা গিয়েছে |

সাফোক পুলিশের সন্ত্রাস দমন শাখার নজরে আসে ক্লিন্টন | জানা যায়, তাদের প্রাথমিক সন্দেহ ক্লিন্টন কোন হামলার ছকের পরিকল্পনা করছিল | তাই তার বাড়িতে ওইসব রাসায়নিক মজুত করার প্রক্রিয়া চলছিল | তবে কে সে ব্যাক্তি যারা তাকে নামাজের জন্য প্রতি শুক্রবার নিতে আসত তা জানতে তদন্তে পুলিশ | প্রশ্ন উঠছে তার ইসলাম ধর্মে রূপান্তর নিয়েও | সেখানকার পুলিশের প্রাথমিক অনুমান ইংল্যান্ডে সক্রিয় কোন জেহাদী দলের সংস্পর্শে এসছিল ক্লিন্টন | তারই মগজ ধোলাইয়ের ফলাফল এই হামলার প্রস্তুতি বলে মনে করছেন পুলিশ আধিকারিকেরা | রবিবারই পুলিশ ক্লিন্টনকে নিজের হেফাজতে নেয় সাফোক পুলিশ আধিকারিকেরা |

মেট্রোপলিটন পুলিশ ও সাফোক পুলিশ যৌথভাবে এই তদন্ত ভার নিয়ে ১০০মিটারের মত জায়গাকে ঘিরে রেখেছে | ক্লিন্টনের বাড়ি ছাড়াও আরও তিন প্রতিবেশীর বাড়িও তার মধ্যে রয়েছে | ক্লিন্টনের বাড়ি সহ সেই বাড়িগুলিও খালি করার নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here