এবার মন খারাপের হদিশ দেবে ব্লু ব্রেন,২০২৩-এ বাজারে আসছে অত্যাধুনিক এই প্রযুক্তি

0

Last Updated on

যখন তখন মন খারাপ হয় কেন ? অ্যালঝাইমার্সে ভুগলে বর্তমান ছাড়া সব স্মৃতিই মুছে যায় কেন ? মৃত্যুর পর ঠিক কি হয় ? এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজছেন লক্ষ লক্ষ মানুষ | ধরুন এমন যদি কোনো চিপ থাকে যা শরীরে ঢুকে চলা ফেরা করার সঙ্গে সঙ্গে বাইরে কম্পিউটারের স্ক্রিনে ভেসে উঠবে তার বৈজ্ঞানীক কারণ | তবে সহজেই জানা যাবে এই বিষয়গুলি | আর যুগান্তকারী এই গবেষণার প্রয়োজনে এবার তা সার্ভের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বিশ্বে চর্চায় উঠে এসেছেন বেঙ্গালুরু বিএমএস ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্রী লিনা আর | মানুষের মস্তিষ্কের উলি্টো প্রযুক্তি খাটিয়ে তৈরি হচ্ছে মস্তিষ্ক পড়ার একটি সফটওয়্যার চিপ | যাকে সহজভাষায় বলা হবে ন্যানোবটস | কি কাজ তার ? সেটি দেহে প্রবেশ করানো হবে এবং বাইরের ডিভাইসের মাধ্যমে সেটি দেহের যেখান যেখান দিয়ে যাবে সেই স্পন্দন ধরে রাখবে বাইরে থাকা মেমারির মধ্যে |

এর কাজ প্রথম শুরু হয় ২০০৫ সালে | হেনরি মারক্রাম ,এক নিউরো সায়েন্সের অধ্যাপক স্নায়ুর অন্তর্গত নিউরোন ও তার নেটওয়ার্ক নিয়ে কাজ শুরু করেন | মানুষের মস্তিষ্ককে কম্পিউটার মডেলের মত ব্যবহার করার গবেষণা তিনি প্রথম শুরু করেন | নাম দেন ব্লু ব্রেন প্রোজেক্ট | হেনরি মনে করেন, এই প্রোজেক্ট সফল হলে মানুষের মৃত্যুর পরের নানা তথ্যও ওই ন্যানোবোটে সঞ্চিত থাকবে | যা থেকে মৃত্যুর সময়ের অনুভূতি থেকে তার পরের দশা সবই বর্ণনা করা সম্ভব হবে | জীবজ সমস্ত করম প্রক্রিয়া, স্নায়ুস্পন্দের নানা তথ্য সবেরই হদিশ মিলবে এর মাধ্যমে |

এই প্রোজেক্টের সার্ভের কাজ শুরু করেছেন ব্যাঙ্গালোরের এস টেকের ছাত্রী লিনা | তাঁর দাবি, ২০২৩সালের মধ্যে রিসার্চ ও সার্ভের কাজ সম্পন্ন করে বাজারে চলে আসবে এই অত্যাধুনিক প্রযুক্তি | এটি চিকিতসার নতুন দিক খুলে দেবে বলেও আশা এই ভারতীয় মেধাবী ছাত্রীর | পারকিনসনস, অ্যালঝাইমার্স,বাইপোলার টারময়েলের মত আরও নানা স্নায়ু ও মনোরাগ সম্পর্কে বেশি পরিমাণে তথ্যের হদিশ দেবে এই ব্লু ব্রেন |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here