রক্তদান শিবিরেও রাজনৈতিক তকমা লাগিয়ে সাসপেন্ড আইসি

0

Last Updated on

শনিবার ও রবিবার | একই জেলার দুটি জায়গায় আয়োজিত রক্তদান শিবির | দুটিতেই উপস্থিত সংশ্লিষ্ট থানার আইসি | একটি স্বাধীন পল্লী ক্লাব | বরানগর পৌরসভার অন্যতম চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল দিলীপ নারায়ণ বসু সেই ক্লাবেরই পৃষ্ঠপোষক বলে পরিচিত | রবিবারের সেই রক্তদান শিবিরে উপস্থিত ছিলেন দমদম লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ ডঃ সৌগত রায়,ছিলেন বরানগরের বিধায়ক তাপস রায় সহ একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব| আর ছিলেন বরানগরের মাননীয় আই সি ও |

অন্য ছবিটি বিজেপির দত্তপুকুর ১ নম্বর অঞ্চল সভার উদ্যোগে একটি রক্তদান শিবিরের | সেই শিবিরে উপস্থিত দত্তপুকুর থানায় আইসি মানস কুমার সরকার | প্রথম রক্তদান শিবিরের আইসি সসম্মানে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ | কারণ তা শাসক ঘনিষ্ঠ ক্লাবের রক্তদান শিবির | অথচ দ্বিতীয়টির ক্ষেত্রে বেশ বেকায়দায় মানস কুমার সরকার মহাশয় | বিজেপির রক্তদান শিবিরে উপস্থিত হয়ে জেলা পুলিশের রোষানলে পড়লেন দত্তপুকুর থানায় ভারপ্রাপ্ত এই আধিকারিক । সার্ভিস রুল ভাঙার অজুহাতে তাকে রাতারাতি সাসপেন্ড করা হল | যদিও এ নিয়ে মুখে কুলুপ জেলা পুলিশের কর্তাদের । বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই পুলিশ মহলে কানাঘুষো শুরু হয়ে গিয়েছে । শুধুমাত্র রাজনৈতিক ব্যানারকে সামনে এনে সার্ভিস রুলের দোহাই দিয়ে তাকে সাসপেন্ড করা নিয়েও জেলা পুলিশের উপর আঙুল তুলেছে অনেকেই ।

শনিবার ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির ১১৯ তম জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজন করা হয় দত্তপুকুর ১ নম্বর রেল স্টেশনে । তিনি সেখানে উপস্থিত হন । মঞ্চে ওনার উপস্থিতির ভিডিওটি ও ছবি ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায় । তারপরেই নড়েচড়ে বসে জেলা পুলিশের কর্তারা । রাতারাতি তাকে সাসপেন্ড করে দত্তপুকুর থানায় দায়িত্ব দেওয়া হয় বারাসাত আদালতে কোর্ট ইনস্পেকটর দীপঙ্কর দাসকে ।

এরপরেই বিতর্কের ঝড় ওঠে পুলিশ মহল সহ সাধারণ মানুষের মধ্যে । ঘটনার তীব্র নিন্দা করে ওয়েষ্টবেঙ্গল ভলেন্টিয়ার ব্লাড ডোনার্স ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও দীর্ঘ দিনের রক্তদান আন্দোলনের প্রতিনিধি অপূর্ব ঘোষ বলেন | তাঁর মতে, সরকার পক্ষের বিভিন্ন রক্তদান শিবিরে পুলিশের বড়বড় কর্তাদের দেখা যায় । রক্তদানের মত কাজে উৎসাহ দেওয়া প্রশাসনিক কর্তাদেরও কাজ বইকি । শিল্পী সমীর আইচ প্রশাসনের এই পদক্ষেপকে হাস্যকর বলে আখ্যা দিয়ে বলেন, রক্তদানের মত বিষয়ে রাজনৈতিক রং দেখাটা খুব অন্যায় । কোন দল রক্তদান করছে সেটা বড় কথা নায় তারা কি কাজ করছে এবং সেটা মানুষের কি কাজে লাগছে সেটাই বড় কথা । তবে সব দেখে শুনে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা অবশ্য অন্য কথা বলছেন | তাঁরা বলছেন, শাসক তৃণমূল কংগ্রেস আসলে সবেতেই বিজেপি জুজু দেখছে | ঘর বাঁচাতে মরিয়া শাসক দল তাই এহেন পদক্ষেপ করছেন কোথাও কোথাও পাছে তাঁদের পুলিশ অবাধ্য হয়ে না যান |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here