নিত্য দিন বোম উদ্ধারে কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ বীরভূম প্রশাসনের

0

Last Updated on

লোকসভা ভোটের পর থেকে পেরিয়ে গিয়েছে অনেকদিন | কিন্তু বীরভূমের অশান্ত পরিস্থিতির উন্নতির পরিবর্তে ক্রমশই তা দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে প্রশাসনের কাছে | জেলাজুড়ে বিক্ষিপ্ত বোমাবাজির ঘটনা এলাকার পরিবেশকে ভীত-সন্ত্রস্ত করে রেখেছে। তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ অথবা তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে প্রায় প্রতিদিনই ঘটে চলেছে বিক্ষিপ্ত বোমাবাজির ঘটনা। পরিস্থিতি এতটাই নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেছে যে এই বোমাবাজির ঘটনা শুধু রাজনৈতিক ময়দানেই সীমিত নেই ! পারিবারিক বিবাদেও অবাধে চলছে বোমাবাজি দৌরাত্ম্য। এই অবাধ বোমাবাজির ফলস্বরূপ ঘটছে বিক্ষিপ্ত বিস্ফোরণের মতো ঘটনা ! অকুস্থল কখনো তৃণমূল কার্যালয় কখনো স্থানীয় তৃণমূল নেতার বাড়ি।

বুধবার সদাইপুরের রেঙ্গুনী গ্রামে ঘটে যাওয়া বিস্ফোরণে উড়ে যায় তৃণমূল নেতার বাড়ি। মজুদ করা বোমা থেকেই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় সূত্রে খবর। স্বাভাবিকভাবেই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকাজুড়ে। ঘটনায় পুলিশও তৎপর হয়ে ওঠে এবং জেলাজুড়ে চিরুনি তল্লাশি শুরু করে তারা। গোটা রাত ব্যাপী এই পুলিশি অভিযানের ফলে বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রচুর তাজা বোমা উদ্ধার হয়। মারগ্রাম থেকে ৩৫ টি তাজা বোমা, রামপুরহাট থানার অন্তর্গত দখলবাটি গ্রাম থেকে উদ্ধার হয় এক ড্রাম ভর্তি তাজা বোমা। এছাড়া সদাইপুরে যে তৃণমূল নেতার বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে সেই বাড়ির পার্শ্ববর্তী তে উদ্ধার হয় আরো ১৮ টি তাজা বোমা।

বিপুল পরিমাণ বোমা উদ্ধার হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে এই বোমার উৎস নিয়ে। বীরভূম জেলা পুলিশ ঘটনার জোড়তার তদন্ত শুরু করে দিয়েছে এবং সেইসূত্রে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এক তৃণমূল নেতাকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here