” মুখ্যমন্ত্রী জয় শ্রী রাম বলবেন না আল্লার নাম নেবেন, তা উনি জানেন “

0

Last Updated on

লোকসভা ভোটের ফলাফলে নিয়ে কোন দ্বিমত নেই যে গেরুয়া শিবিরকে ঢেলে ভোট দিয়েছেন রাজ্যবাসী | নির্বাচনের আগেও বেশিরভাগ নির্বাচনী কেন্দ্রে বুথ কমিটি গড়ে তুলতে কালঘাম ছুটেছিল যে দলটির, ভোট শেষে তারাই কিনা রাজ্যের ৪০শতাংশ ভোট পেয়ে ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে শাসক দলের | এই সমীকরণের পিছনে আর কেউ নয় | রয়েছে আরএসএসের মত সুসংহত একটি ক্যাডার নির্ভর নেটওয়ার্ক| এই কথা নানা সময় একাধিকবার বলেও ফেলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় | নৈহাটির রাজনৈতিক মঞ্চ তাকে মোকাবিলা করতে তাই রাজ্যের প্রতিটি জেলায়, প্রতিটি ব্লকে জয় হিন্দ বাহিনী ও দুর্গা বাহিনী তৈরি করার ঘোষণা করলেন সরাসরি | আরও এগিয়ে তাঁরই দলের উত্তর কলকাতার সাংসদ আরও এক কদম এগিয়ে বললেন , তাঁর নির্বাচনে এই বাহিনীর সদস্যরা নাকি জনসংযোগের কাজটি করেছেন অত্যন্ত নিপুণভাবে | এই বাহিনী যুগলকে খোলা মনে সার্টিফিকেট দিয়েছেন দুর্গাপুরের সাংসদ এস এস আলুওয়ালিয়া | সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, জয় হিন্দ বাহিনী উচ্চারণে জয় হিন্দ বলতে হবে| আর জয় হিন্দ বলতে তাঁর অসুবিধের কোন কারণ নেই | তবে বামেদের বন্দেমাতরম বা অধুনা শাসকদলের জয় শ্রী রাম বলার অনিচ্ছুক মনোভাবকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বর্ষীয়ান এই সাংসদ | জয় শ্রী রাম ধ্বনিটিতে সনাতন হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের আপত্তি থাকার কথা নয় বলেই তাঁর মত | প্রসঙ্গতঃ নৈহাটিতে মুখ্যমন্ত্রীর গাড়ি ঘিরে জয় শ্রী রাম বলার জন্য ১০ বিজেপি সমর্থককে গ্রেফতার করা হয়েছিল বলে সূত্রের খবর | সেকথা মাথায় রেখেই দুর্গাপুর সাংসদ রবিবার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমোর সংখ্যালঘু তোষণকে খোঁচা দিয়ে বলেন, ” রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জয় শ্রী রাম না বলে আল্লার নাম নিতে চাইছেন কিনা জানিনা” | জয় শ্রী রাম স্লোগান নিয়ে চলতে থাকা তরজার আগুনে বিজেপির এই সাংসদের মন্তব্য আরও কিছুটা ঘি ঢালবে তা নিঃসন্দেহে হলা যায় | দুই বাহিনী তৈরি করে সংঘের মোকাবিলার প্রস্তুতিকে বিজেপির এই সাংসদ বাহবা দিলেও সংঘের মত শৃঙ্খলাপরায়ণ সংগঠন কি আদৌ গড়ে তুলতে সক্ষম হবে শাসক দল,তাও এই স্বল্প সময়ের মধ্যে তা নিয়ে সংশয় থেকেই যাচ্ছে বলে মত রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here