“জয় শ্রী রাম আগে বিজেপির লোকেরা বলত , এখন সবাই বলছে ,” বললেন দিলীপ ঘোষ

0

Last Updated on

নদীয়া: ” জয় শ্রী রাম এতদিন বিজেপির লোকেরা বলতেন | এখন রাজ্যের সাধারণ মানুষ বলছেন | জয় হিন্দ বলতে কোন অসুবিধে নেই |” দল ত্যাগী তৃণমূল কর্মী-সমর্থক থেকে বিধানসভা ভোট সব কিছু নিয়েই খোলাখুলি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হলেন রাজ্যে সভাপতি দিলীপ ঘোষ | এদিন নদীয়ায় বিজেপির সাফল্যের জন্য বিজয় মিছিল,নতুন কার্যালয় উদ্বোধন সহ একাধিক কর্মসূচি নিয়ে সেখানে পৌঁছন | বৃহস্পতিবারের সভায় তৃণমূলের প্রাক্তন পঞ্চায়েত প্রধান সহ বেশ কিছু সদস্য ও কর্মীরা বিজেপিতে যোগদান করেন | পুষ্পস্তবক দিয়ে জেলা নেতৃত্ব বরণ করে নেন নব নির্বাচিত রাণাঘাটের সাংসদ জগন্নাথ সরকার ও বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে| দিলীপ বাবু খুব খোলাখুলি জানান, দল ভাঙানোর কেন খেলাতে তাঁরা বিশ্বাসী নন| গণতন্ত্র মেনেই যা হওয়ার সব কিছু হয় বিজেপিতে | তৃণমূল বা অন্য কোন রাজনৈতিক দলে যারা স্বচ্ছন্দ্য ছিলেননা , তাঁরাই যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে, কাজ করার জন্য | যাদের ভাবমূর্তির সঙ্গে দলের ভাবমূর্তি খাপ খাবে তাঁদেরকেই নেওয়া হবে বিজেপিতে | সাংবাদিকরা বিভিন্ন দলীয় কার্যালয় বিজেপি দখল করার প্রসঙ্গে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, হিংসাকেও প্রশ্রয় দেয়না বিজেপি | নিজেদের দলের অন্দরে এত ভাগ রয়েছে, যে সেই তৃণমুলেরা নিজেদের মধ্যে লড়াই করে বিজেপির নাম দিয়েছে | রাজ্যে এখন একটাই প্রবণতা, হিংসার সঙ্গে যেন-তেন প্রকারে বিজেপির নাম জড়িয়ে দেওয়া | বলেন দিলীপ ঘোষ | উপরের সাংবাদিক বৈঠকের কিছু উত্তর যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা | আদালত কর্তৃক দলত্যাগে লাগাম দেওয়ায় দলীয় কর্মীদের ক্ষোভ প্রশমিত করার পাশাপাশি ভাবমূর্তিকে যে আগামীতে যথেষ্ট গুরুত্ব দেবে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব তা এককথায় স্পষ্ট রাজ্য বিজেপি সভাপতির কথায় আভাস পাওয়া গিয়েছে | বীরভূমের বিতর্কিত তৃণমূল নেতা মনিরুল ইসলামকে দলে নেওয়া যে ভালো চোখে নেননি দলের কট্টরপন্থী নেতা-কর্মীরা তা আগেই বোঝা গিয়েছিল | আর সেই ভুল শুধরাতেই তবে কি ভাবমূর্তির প্রসঙ্গটি টেনে আনলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এদিনের সাংবাদিক বৈঠকে , প্রশ্ন করছে রাজনৈতিক মহল|

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here