“বহরমপুরে অবশ্যই অধীর একটা ফ্যাক্টর”

0

Last Updated on

শাসকদলের সন্ত্রাসে নাকি তিনি ২৬৮টি বুথে এজেন্ট বসাতে পারেননি| তাও বহরমপুরের বেতাজ বাদশা অধার রঞ্জন চৌধুরি| আবার মনোনীত হয়ে বললেন ২০১৯এর লোকসভা ভোটে যদি মোদি একটা ফ্যাক্টর হয়,পশ্চিমবঙ্গে মমতা যদি ফ্যাক্টর হয়,তবে বহরমপুরে অবশ্যই তিনি ফ্যাক্ঠর| লোকসভা নির্বাচনে তিনি তাঁর নিকটতম প্রতীদ্বন্দ্বী তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী অপূর্ব সরকারকে ৮০হাজারেরও বেশি ভোটে পরাজিত করেন| ফলাফলের পরই তিনি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে তাঁর ক্ষোভ উগড়ে দেন| দল ভাঙানো থেকে শুরু করে কংগ্রেস কর্মীদের বাড়ি গিয়ে ভয় দেখানো এসব করেও অধীরকে হারাতে পারেনি শাসকদল| এমনকি নির্বাচন কমিশন বহু জেলার প্রশাসনিক কর্তাদের পরিবর্তন করলেও শোনেনি তাঁর কথা| গোটা জেলাতে একটিও পঞ্চায়েত সদস্য মনোনীত হয়নি কংগ্রেস থেকে| কারণ ভোটটাই হয়নি মুর্শিদাবাদে| সেই প্রশাসনিক কর্তাদের দিয়েই ভোট পরিচালনা করিয়েছেন কমিশন| তারই ফলস্বরূপ এতগুলো বুথে এজেন্ট দিতে পারেননি তিনি ,অভিযোগ বহরমপুরের পাঁচবারের সাংসদের| পরিসংখ্যান বলছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের ভোট শতাংশের হিসেবে ঘারের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে কংগ্রেসের| ২০০৯সালে প্রাপ্ত ৫৬শতাংশ মানুষের আশীর্বাদ কমতে কমতে এবার দাঁড়িয়েছে ৪৫শতাংশে| প্রশ্ন উঠছে শাসকের বিরোধীতা করার প্রকৃত মুখ অধীর চৌধুরির ক্ষয়িষ্ণু জনপ্রিয়তা কি আরও অনিশ্চিত করে দেবে মুর্শিদাবাদে কংগ্রেসের ভবিষ্যৎ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here