বারাসাতে সাংবাদিক নিগ্রহে অভিযুক্ত শাসক দল, রাজনৈতিক সংঘর্ষে অশান্ত এলাকা

0

Last Updated on

বারাসাতে বিজেপির মিছিল ঘিরে অশান্তি | সেই খবর করতে গিয়ে আক্রান্ত সাংবাদিকেরা | শনিবার রাতে বিজেপির মিছিল থেকে ‘জয় শ্রী রাম স্লোগান’ নিয়ে ঝামেলার সূত্রপাত | বারাসাতের ৮নং ওয়ার্ডের পুরপিতা অরুণ ভোমিকের অভিযোগ, বিজেপির মিছিল করতে করতেই সেখান থেকে কিছু যুবক পৌরপিতা অরুণ ভৌমিকের বাড়ির দিকে ছুটে আসতে দেখেন তিনি | মিছিলের সঙ্গে থাকা পুলিশ তাদের প্রতিরোধ করে | এরপর তাঁর দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে ভাঙচুর করে বলে আরও অভিযোগ করেন তিনি | সেই মিছিল ধীরে ধীরে এগোয় ওয়ার্ড নং ৬ এর দিকে | সেই ওয়ার্ডের পৌরপিতা চম্পক দাসের আপ্ত সহায়ক সে সময় দলীয় কার্যালয়ে কাজ করছিলেন | অভিযোগ, তাদের হাতের রড,লাঠি নিয়ে তারা চড়াও হয় সেই আপ্ত সহায়কের উপর | তাতে গুরুতর জখম হয় সে ,জানান চম্পক দাস |

তৃণমূল নেতৃত্ব এইব ঘটনায় প্রশাসনের ব্যর্থতা দেখছেন | ওই মিছিলটির সঙ্গে পুলিশ ছিল | অরুণ ভোমিকের ওয়ার্ডে হামলা চালানোর পর কেন তারা ওই মিছিলটিকে চম্পক দাসের ওয়ার্ডের দিকে এগোতে দিলেন, উঠছে প্রশ্ন | মিছিল সেখানেই থামিয়ে দিলে দুবার হামলার ঘটনা ঘটত না বলেই মনে করছেন তারা |

অন্যদিকে বিজেপি নেতৃত্বের পাল্টা বক্তব্য এই দুই পৌরপিতার বিরুদ্ধেই কাটমানির অভিযোগ নিয়ে তাঁদের কার্যালয় ঘেরাও করে কিছু মানুষ | সেখানে ‘জয় শ্রী রাম স্লোগান’ ঘিরেই ঝামেলার শুরু | এরপরই তৃণমূলের সমর্থকেরা জোর করে ‘জয় হিন্দ,জয় বাংলা ‘ বলানোর চেষ্টা করানোতে , দুপক্ষের হাতাহাতি থেকে সংঘর্ষের চেহারা নেয় |

দুই পৌরপিতার অনুরাগীরা যখন এই ঘটনা জানাতে স্থানীয় বারাসাত থানায় গিয়ে পৌছয়, তখন সেখানে খবর করতে গেলে সাংবাদিকদের উপর চড়াও হয় সেই তৃণমূল সমর্থকেরা | সাংবাদিকদের মেরে মুখ ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে | কোন কোন সাংবাদিকদের মোবাইল ভেঙ্গে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগও ওঠে | চড় থাপ্পরের থেকে কোনমতে নিজেদের বাঁচিয়ে চলে আসেন সাংবাদিকেরা |

এই ঘটনার প্রতিবাদে জেলা জুড়ে ধিক্কার দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নেন নিগৃহীত সাংবাদিকেরা | জেলাশাসকের দফতরের সামনে প্রতিবাদ অবস্থানেরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় | কাটমানির খবর চাউর হওয়া থেকে আটকানোর জন্যই যে এই হামলা ,বলছেন নিগৃহীত সাংবাদিকেরাও |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here