মাউন্ট এভারেস্টে হাজার হাজার কেজি বর্জ্যপদার্থ উদ্ধার

0

Last Updated on

মাউন্ট এভারেস্ট, পৃথিবীর সর্বোচ্চ শৃঙ্গ, ১৯৫৩ সালে যার উপর প্রথম পদার্পণ করেন নিউজিল্যাণ্ড নিবাসী পর্বতারোহী এডমণ্ড হিলারি এবং ভারতীয় পর্বতারোহী তেনজিং নোরগে। নেপালী ভাষায় ‘সাগরমাতা’ এবং তিব্বতী ভাষায় ‘চোমোলুংমা’ নামে পরিচিত বিশ্বের সর্বোচ্চ শৃঙ্গের গোটা বিশ্বের দরবারে পরিচিতি হল তখনই। তারপর থেকে গোটা বিশ্বের পর্বতারোহীদের জীবনের সর্বোচ্চ স্বপ্ন হয়ে দাড়ায় মাউণ্ট এভারেস্ট বিজয়। কালক্রমে অল্প সংখ্যক মানুষের পায়ের চিহ্ন পড়া মাউণ্ট এভারেস্ট কার্যত পরিণত হয় পর্বতারোহীদের পিকিনিক স্পটে। ফলে যা হওয়ার তাই হয়েছে। এই বিপুল সংখ্যক মানুষের চলার পথ, বেসক্যাম্প থেকে শৃঙ্গ অবধি গোটা পথটাই, এমনকি শৃঙ্গের উপরের অংশও ভরে গেছে পর্বতারোহীদের সাথে আনা বর্জ্যে। এই বিপুল সংখ্যক বর্জ্যপদার্থ নিয়ে পরিবেশবিদদের মাথায় পরছে চিন্তায় ভাঁজ। সম্প্রতি নেপাল সরকারের উদ্যোগে গত ১৪ এপ্রিল শুরু হয় এই বিপুল সংখ্যক বর্জ্যপদার্থ উদ্ধারকার্য্য। সূত্রের খবর প্রায় ৪৫ দিন ধরে চলবে এই উদ্ধারকাজ। যার পোষাকী নাম ‘Everest Cleaning Campaign’। ইতিমধ্যেই প্রায় ৩ হাজার কেজি উদ্ধার করা গেছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। পূর্ব নেপালের কিরাট প্রদেশের ‘সোলুখুম্বু’ জেলার ‘খুম্বু পাসাংলামু’ গ্রামীণ পুরসভার উদ্যোগে শুরু হওয়া ঐই বর্জ্যপদার্থ উদ্ধার অভিযানে প্রায় ১০ হাজার কেজি বর্জ্য উদ্ধার করা যাবে বলে এই অভিযানের আধিকারিকদের মত।

শিবাজী প্রতিম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here