” উপত্যকা আশান্ত করতে টাকা আসতো সৌদি , লাহোর থেকে ” জেরায় স্বীকার আশিয়ার

0

Last Updated on

বুধবার ঈদের দিনে নামাজের পরই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল উপত্যকা | জঙ্গী খতমের সময় যৌথবাহিনীর গুলিতে এক স্থানীয় মহিলার আহত হওয়াকে কেন্দ্র করে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয় বাহিনীর সঙ্গে | হাতে জঙ্গী সংগঠনের পতাকা নিয়ে দাপাদাপি করতে দেখা যায় বেশ কয়েকজন যুবককে | অন্যদিকে এনআইএ তরফ থেকে বিচ্ছিন্নতাবাদী মহিলা নেত্রী আশিয়া আনদ্রাবিকে জেরা করে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাজির করা হয়েছে বুধবারই | জেরায় ওই বিচ্ছিন্নতাবাদী নেত্রী স্বীকার করেছেন, লস্কর-ই-তৈবার চিফ হাফিজ সঈদের সঙ্গে তার নিবিড় যোগাযোগের কথা | পাকিস্তানের একাধিক সেনার পদে আশিয়ার আত্মীয়রা থাকায়,তাদের মাধ্যমে হাফিজের সংস্পর্শে আসা সম্ভব হয়েছে বলে জানিয়েছে জেরার মুখে | প্র্রকাশ্যে প্রসঙ্গত কাশ্মীর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞানে স্নাতক আশিয়ার সংবাদের শিরোনামে এসেছিল,যখন সে শ্রীনগরের রাস্তায় প্রকাশ্য পাকিস্তানের জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে পাকিস্তানের পতাকা উড়িয়েছিল | এনআইএর সূত্রের খবর , পাকিস্তানি সেনাবাহিনীতে ক্যাপটেন পদে তার ভাই ছাড়াও দুবাই ও আবুধাবিতে তাঁর অনেক আত্মীয় থাকে | সেই সূত্রেই সেখান থেকে জঙ্গী সংগঠনগুলিকে আর্থিক অনুদান জোগাড় করে দিত বলে জানা গিয়েছে | তদন্তে নেমে আরো জানা যায়, উপত্যকাকে অশান্ত রাখার জন্য সৌদি ও লাহোরের মধ্যে হাওয়ালার মাধ্যমে টাকা লেনদেনের কাজটি করত আশিয়া | সেই অপরাধে ২০১৭সালে তার বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মত গুরুতর অপরাধের মামলা দায়ের করে এনআইএর আধিকারিকেরা | প্রত্যেক শুক্রবার নামাজের পর উপত্যকার রাস্তায় নিরাপত্তাবাহিনী লক্ষ্য করে ইঁট , পাথর ছুঁড়ে অশান্ত করার প্রয়াসের পিছনে এই হাওলার অর্থ ব্যবহার করা হয়ে থাকে | তা জোগাড় করার পাশাপাশি আইএসআই অপারেটরদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা,এসবের পিছনেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে কাশ্মীরি এই জঙ্গী নেত্রী আশিয়া | আশিয়ার সঙ্গে দিল্লিস্থিত পাক হাই কমিশনারের আধিকারিকদেরও নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে বলে জেরার স্বীকার করেছে সে | সৌদি ও পাক সরকারের আধিকারিকেরাও নিয়মিত যোগাযোগ রাখতো এই বিচ্ছিন্নতাবাদী নেত্রীর সঙ্গে | পাকস্থিত ভারতের হাই কমিশনের উদ্যোগে ডাকা ইফতারের পাক নিরাপত্তা রক্ষীদের অভব্য আচরণে যথেষ্ট প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করছেন কূটনৈতিক মহল | তার ওপর আশিয়াকে জেরায় উঠে আসা তথ্যানুযায়ী , উপত্যকায় সরাসরি পাক সরকারি আধিকারিকদের উপত্যকা অশান্ত করে তোলায় সক্রিয় অংশগ্রহণ পরবর্তীকালে ভারত-পাক কূটনৈতিক সম্পর্কে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে বলে মত কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞদের |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here