মন্দিরের সামনে গাড়ি পার্কিং করাকে কেন্দ্র করে দিল্লির চাঁদনী চক এলাকায় দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ

0

Last Updated on

দিল্লির চাঁদনী চক এলাকায় ১০০ বছরের পুরোনো দুর্গা মন্দির ভাঙচুরের অভিযোগে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে প্ববল উত্তেজনা ছড়ালো সোমবার রাতে | ঘটনার সূত্রপাত মন্দিরের বাইরে বাইক রাখাকে কেন্দ্র করে | সোমবার বিকেলে দুই ব্যাক্তির মধ্যে বাইক রাখা ঘিরে শুরু হয় কথা কাটাকাটি | সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর সমর্থকদের ভিড় জমতে শুরু করে | বচসায় জড়িয়ে পড়ে তারাও | উত্তজেনা বাড়তে থাকার পর চাঁদনী চকের হজ কাজি এলাকার শতাব্দী প্রাচীন মন্দিরে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ এক পক্ষের বিরুদ্ধে | এক গোষ্ঠী ওই ভেঙে যাওয়া মন্দিরের বাইরে দাঁড়িয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তির দাবি করেন | সেই বিক্ষোভ প্রতিবাদ চলে মঙ্গলবার ভোর রাত অবধি | বিক্ষোভ চলার সময় অভিযোগ ওঠে অন্য গোষ্ঠীর লোকেরা বিক্ষোভরত মানুষদের লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে থাকেন | পাল্টা আঘাত করেন বিক্ষোভকারীরাও | এরপরই বড় রকমের আকার নেয় ওই ঘটনা | ঘটনাস্থলে উপস্থিত পুলিশও হিমশিম খায় ওই এলাকায় উন্মত্ত জনতাকে কাবু করতে |

ঘটনার পরপরই ডিসিপি সেন্ট্রাল দিল্লি সোশ্যাল মিডিয়ায় এলাকায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বজায় রেখে শান্তিপূর্ণ অবস্থানের আবেদন জানান | আইনি ব্যবস্থার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানেরও কথা বলেন তিনি ওই পোস্টটিতে | এই ঘটনার পর শুরু হয়েছে তদন্ত | পুলিশ আধিকারিকেরা জানান,কে বা কারা এলাকায় শান্তি ভাঙার চেষ্টা করছে, তাদেরকে সিসিটিভি দেখে শনাক্ত করে খোঁজ চালানোর প্রক্রিয়া চালু হয়েছে | খুব শীঘ্রই প্রকৃত অপরাধী সামনে আসবে বলে জানানো হয়েছে |

অন্যদিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় দিল্লির অবিন্যস্ত পার্কিং সমস্য়ার জন্য দিল্লির সরকারকেই দায়ী করেছেন অনেক দিল্লিবাসী | পার্কিং এর নির্দিষ্ট কোন গাইডলাইন না থাকায় স্বল্প পরিসরকে প্রচুর গাড়ি রাখায় প্রায়ই এই ধরনের বচসা হয় বলে তারা জানান | পুরো ঘটনার জন্য তাই তারা দায়ী করেছেন কেজরি সরকারকেই |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here