অবৈধ গরু পাচারকারীদের নিশানায় বিএসএফ জওয়ানেরা,গরুর গলায় মিলল কৌটোবোমা

0

Last Updated on

গরু পাচারকারীদের আগ্রাসী মনোভাব দেখে তাজ্জব বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের জওয়ানেরা | সূত্রের খবর,মুর্শিদাবাদ জেলা দিয়ে পাচার হওয়ার অন্তিম মুহূর্তে বিএসএফের হাতে ধরা পড়া গরুর সংখ্যা ৩৬৫ | তাও মাত্র দুদিনে | কিন্তু খবর সেটি নয় | খবর হল, বিএসএফের হাতে আটক হওয়া গরুগুলির গলায় বাঁধা একটি করে কৌটো বোম উদ্ধার হয় বলে বিএসএফ সূত্রের খবর | যদি কখনও গরুগুলিকে কেউ আটকায় তবে সেই বোম ফেটে তখনই জখম হবে অথবা মারা যাবে সেই ব্যক্তি | মারাত্মক এই মারণ কায়দায় স্তম্ভিত জওয়ানেরা | যথেষ্ট চিন্তার ভাঁজও পড়েছে বিএসএফের উচ্চ পদস্থ কর্তাদের কপালে এর জন্য |

মুর্শিদাবাদের হারুডাঙা চেক পোস্টের জওয়ানেরা নদী থেকে বেশ কিছু এমন গরু উদ্ধার করে যাদের গলায় কলাগাছের সঙ্গে এই কৌটো বোমগুলি বাঁধা অবস্থায় দেখতে পান জওয়ানেরা | বর্ষার সময় নদীগুলিতে জল বাড়লেই আন্তর্জাতিক সীমানা পেরোনোর জন্য নদীপথকেই বেছে নেয় পাচারকারীরা | ভরাত-বাংলাদেশ সীমান্ত পাড়ি দিতে কলাগাছকে গলায় বেঁধে গরুদের জলে নামিয়ে দেওয়া হয় | আপসেই সেই গরুগুলো নদী পার হলে অন্য পারে থাকা অন্য দেশের পাচারকারীরা তা নিয়ে নেয় | এই পন্থা চোখে পড়ে নদীয়, মুর্সিদাবাদ,উত্তর২৪পরগনা |

রাতের অন্ধকারে এই গরুগুলিকে আটক করা এমনিতেই যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ কাজ বিএসএফ জওয়ানদের জন্য | তার উপর গলায় কৌটো বোম থাকায় তা আরও বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে বলে মত উচ্চ পদস্থ আধিকারিদের | সব গরুর গলায় তা বাঁধা না থাকলেও উদ্ধারের সময় অসাবধানতার জেরে বিস্ফোরণে উড়ে যেতে পারে অন্য যেকোন গরু | তাই নিতে হয়েছে বাড়তি সতর্কতা | গোয়েন্দারা মনে করছে পাচারকারীরা এর মাধ্যমে নিশানা করতে চাইছে ভরাতীয় বিএসএফ জওয়ানদেরও | সেক্ষেত্রে বাংলাদেশের কোন সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের সঙ্গে পাচারকারীদের গোপন আঁতাতের ফলে এই পন্থা নেওয়া হল কিনা ,তাও খতিয়ে দেখছেন গোয়েন্দারা |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here