প্রাক্তন কংগ্রেস পৌরপিতা ও সাংবাদিক সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসনের সক্রিয়তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

0

Last Updated on

তিনি বদলেছেন | অনেকটাই | অনেকটাই সংযত হয়েছেন কথাবার্তায় | আচার -আচরণে | শাসনকালের প্রথম দিকের সেই অনমনীয়তা,অসহিষ্ণুতা এখনও আছে তা কিন্তু কেউ বলতে পারবেন না | যেমন ধরুন ,অধ্যাপক অম্বিকেশ মহাপাত্র বা শিলাদিত্যের সমালোচনা না সহ্য করতে না পেরে তাঁদেরকে তড়িঘড়ি হাজতে পোড়া ,মাওবাদী আখ্যা দিয়ে সেসব কিছুটা হলেও যে কমেছে তাঁরই শাসনকালে,তা বোধ করি রাজ্যের চালিকাশক্তির চরম সমালোচকেরাও বলবেন | তার মধ্যে যে মেমে কেলেঙ্কারীর জন্য রাজনৈতিক রোষে পড়ে হাজতবাস করতে হয়নি বিজেপি নেত্রীকে তা বলব না | কিন্তু জনসমনাসে তার অসহিষ্ণুতার ভাবমূর্তি খানিকটা হলেও মুছে যাওয়ার সময়ে আবারও একটি ঘটনা প্রশ্ন চিহ্ণ এঁকে দিল | তাতে আবারও প্রশ্ন উঠল তবে কি অসহিষ্ণুতার ধরন বদলেছে মাত্র ?

পানিহাটি পৌরসভার একদা পৌরপিতা সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়কে পুলিশ পরিচয়ে কে বা কারা যেন তাঁর কার্যালয় থেকে তুলে নিয়ে গিয়েছে | প্রথম সারির সংবাদমাধ্যমে সে খবরও প্রকাশিত | অভিযোগ কি জানা না গেলেও , সেই পুলিশেরা নাকি সাদা পোশাকের পুরুলিয়া জেলার সাইবার অপরাধ দমন বিভাগের কর্মী | কিন্তু অপরাধ কি ? তা জানা যায়নি | এই ঘটনার পরই বৃহস্পতিবার রাত থেকে অনেক প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজ্যবাসীর মনে |

সন্ময় বন্দোপাধ্যায় অত্যন্ত সক্রিয় ছিলেন ফেসবুক সহ নানা সোষ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে | রাজনৈতিক সত্ত্বাকে বাদ দিলেও বহু বছর প্রথম সারির দৈনিকে সাংবাদিকতা পেশাতে থাকা এই মানুষটির নানা সময় করা পোস্ট অস্বস্তিতে ফেলছিল শাসকশিবিরকে | সরকারি কাগজপত্র হাতে চলে আসায়,অনেক দুর্নীতির পর্দা ফাঁস করছিলেন সন্ময়বাবু | এমনই পোস্টের পরই তিনি তার সদ্য প্রকাশিত মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম বাংলার বার্তা-র মাধ্যমে শাসক দল চালিত রাজ্য সরকারের পুলিশের বিরুদ্ধে তাঁকে ও তাঁর পরিবারকে শারীরিক হেনস্থার অভিযোগ করেছিলেন | যেদিন তাঁকে তার কার্যালয় থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় ,সেদিনও তিনি সরাসরি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তোপ দেগে সরকারি খামখে‌য়ালিপনার নজির রাকার জন্য একটি তথ্য পেশ করেন জনসমক্ষে | ঠিক তার ঘন্টা দুয়েকের মধ্যেই পুরুলিয়া পুলিশের পরিচয়ে সাদা পোশাকের ওই ব্যক্তিদের সন্ময়বাবুর কার্যালয়ে পৌঁছে যাওয়া ও তাকে একপ্রকার উঠিয়ে নিয়ে আসাতে বড়সড় ষড়যন্ত্রেরই অভিযোগ আনছেন পরিবারের লোকেরা | কোথায় রয়েছেন সন্ময় বন্দ্যোপাধ্যায়,কার হেফাজতে তা নিয়ে পুরেপুরি ধন্দে তার পরিবারের সদস্যরা | খড়দহ থানা থেকে পুরুলিয়াকর কথা বলা ইতিমধ্যেই সেখানে তারা পৌঁছেছেন | কিন্তু কোন থানার লকআপেই তাঁকে পাওয়া যায়নি বলেই দাবি পরিবারের সদস্যদের |
প্রশ্ন উঠছে, বারবার নিজেকে গণতন্ত্র প্রিয় বলার পরও রাজ্য সরকারের চালিকাশক্তির

এই লুকোচুরি কেন ? সমালোচনার পাল্টা যুক্তি ,সমালোচনা চলুক | রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে না পেরে কাউকে তুলে নিয়ে আসা কি ভাবমূর্তি স্বচ্ছ রাখছে পুলিশ -প্রশাসনের | প্রসঙ্গত,কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরি ইতিমধ্যেই এই বিষয় নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন | ঘটনাটির নিন্দা করে পোস্ট করেছেন তার সোশ্যাল মিডিয়ার দেওয়ালেও |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here