খেলার মাঠে চোট পেয়ে মৃত্যু প্রতিশ্রুতিবান ফুটবলারের।

1

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক;১০ই সেপ্টেম্বর; ২০১৯ : সোমবার জয়পুর হাইস্কুল মাঠে আশুরালি হাই স্কুলের সঙ্গে মাগুরা হাই স্কুলের ফুটবল প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের খেলা ছিল। ওইদিন আশুরালি হাই স্কুলের তরফে গোলকিপারের দায়িত্বে থাকা প্রতিশ্রুতিবান তরুণ খেলোয়াড় ১৭ বছরের অভিজিৎ দে’র চোট লাগার ফলে মৃত্যু ঘটে। অভিজিৎ ওই স্কুলের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছিল। খেলা চলাকালীন মাঠে উপস্থিত থাকা আশুরালি হাইস্কুলের ফুটবলের সদস্য রাহুল মন্ডল বলেন, খেলা চলাকালীন প্রতিপক্ষ দল কর্ণারে শট মারে গোলকিপারের দায়িত্বে থাকা অভিজিৎ সেই বল ধরে ফেলে।

আরও পড়ুন:
https://risingbengal.in/chitar-songe-selfie/

প্রতিপক্ষ দলের এই আঘাতের জেরেই তার প্রিয় বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে বলে রাহুলের দাবি। ঘটনার আরেক প্রত্যক্ষদর্শী সব্যসাচী খাঁ বলেন, দ্বিতীয়ার্ধে খেলা চলাকালীন বিপক্ষে স্ট্রাইকারের সাথে গোলকিপার অভিজিতের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। আগে থেকেই আংশিক আহত অভিজিৎ তখনই মাটিতে লুটিয়ে পরে ও তার মুখ দিয়ে রক্ত ঝরতে থাকে। সেই সময় মাঠে উপস্থিত খেলা পরিচালনার দায়িত্বে থাকা আয়োজকরা এবং শিক্ষকরা অভিজিৎ কে তৎক্ষণাৎ জয়পুর ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করেন। পরে তাকে সেখান থেকে বিষ্ণুপুর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সোমবার রাতেই বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় অভিজিৎ কে। চিকিৎসা চলাকালীন সেই রাতেই অভিজিতের মৃত্যু হয়। এই ঘটনায় জয়পুর ব্লক এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

আরও পড়ুন:
https://risingbengal.in/nabalok-chatro-k-kete-felar-humki/

এলাকার় মেধাবী ছাত্র হিসেবে এবং ভালো ফুটবলার হিসেবে অভিজিৎ কে সকলেই ভালোবাসতো। এলাকায় সে একজন ভালো ছেলে হিসেবে পরিচিত ছিল। অভিজিতের বাবা রাজমিস্ত্রির কাজ করায় সেই সময় বাড়িতে উপস্থিত ছিলেন না। অভিজিতের কাকা রাজু দে ঘটনার খবর পান বিকেলে। তিনি সাথে সাথেই অভিজিতের বাবাকে খবর দেন। বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অভিজিতের মৃত্যু হয়।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here