“জয় শ্রী রাম” ধ্বনিতে ফের মেজাজ হারালেন তৃণমূল সুপ্রিমো

0

Last Updated on

সিঙ্গুর নন্দীগ্রাম আন্দোলনের পরে রাস্তায় নামলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় | বিজেপির সন্ত্রাসে ঘরছাড়া দলীয় কর্মীদের ঘরে ফেরাতে নৈহাটি পৌরসভার সামনে কর্মসূচি ছিলই | পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী তিনি গিয়েওছিলেন | গোলমাল বাঁধল সেই জয় শ্রী রাম ধ্বনিতে | তৃণমূল নেত্রীর গাড়ি রাস্তা দিয়ে এগোতেই একদল ছেলে জয় শ্রী রাম স্লোগান দিতে থাকে | আবার সেই একই ভূমিকায় তিনি| গাড়ি থেকে নেমে হনহনিয়ে হেঁটে চললেন রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা জনতার দিকে | রাগে তখন উন্মত্ত প্রায়| রীতিমত শাসালেন | যারা স্লোগান দিচ্ছিল তাঁরা কেউই নাকি বাংলার লোক নয় | তাঁদেরকে খেতে-পড়তে দিচ্ছেন বলেও দাবি করলেন ক্যামেরার সামনে | তাই বরদাস্ত করবেন না কোন বেয়াদপি | পাত্তারি গুটিয়ে পাঠিয়ে দেবেন অন্যত্র| শোনা গেল এমন হুমকিও | সঙ্গে থাকা সচিব পর্যায়ের আধিকারিককে সেই ছেলেগুলির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বললেন | প্রয়োজনে বাড় বাড়ি গিয়ে চিহ্ণিতকরণের নির্দেশও দিলেন |

কিন্তু প্রশ্ন কেন বারবার জয় শ্রী রাম ধ্বনিতে মেজাজ হারাচ্ছেন তিনি ? বৃহস্পতিবারের ঘটনায় একবার তৃণমূল সুপ্রিমো বললেন তাঁকে উদ্দেশ্য করে বিজেপির সমর্থকেরা নাকি গালিগালাজ করেছে | আবার বললেন যে তাঁর গাড়ি ঘিরে নাকি ভাঙচুর করেছে বিজেপি সমর্থকেরা | এমনকি মেজাজ হারিয়ে অসংযত কথাও বলে ফেললেন | প্রসঙ্গত ৫ই মে জয় শ্রী রাম স্লোগানে গ্রেফতার করা হয়েছিল তিন বিজেপি কর্মীকে| তাঁর প্রসঙ্গ টেনে নিয়ে খোদ প্রধানমন্ত্রী চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে বলেছিলেন পারলে জয় শ্রী রামের জন্য তাঁকে গ্রেফতার করুক মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পুলিশ | প্রশ্ন উঠেছিল এ রাজ্যে তবে কি জয় শ্রী রাম বলা বারণ? হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ছিনিয়ে নেওয়া বারাকপুর আসনটির মধ্যেই পড়ে নৈহাটির ওই অঞ্চলটি | অর্জুন অনুগামীরা তৃণমূল সুপ্রিমোর দিকে ইন্ধনমূলক স্লোগান ছুঁড়ে দিয়েছিলেন বলে ধরে নেওয়া হলেও একজন দক্ষ প্রশাসক হয়ে তাঁর এই ভাষা ও আচরণ কি শোভা পায় ? প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here