এনআরএসে নয় , এসএসকেএমে পৌঁছে আন্দোলনরত চিকিৎসকদের হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

0

Last Updated on

রাজ্য জুড়ে জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতির তৃতীয় দিনে এ নিয়ে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় | শহরের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল এসএসকেএমের কাজকর্ম দেখতে সেখানে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী| তাঁকে দেখা মাত্রই শুরু হয়ে যায় স্লোগান | দেখানো হয় বিক্ষোভ | আর তাতেই ক্ষুব্ধ হন তিনি | নিজে না গেলেও তাঁর প্রতিনিধির ডাকে সাড়া না দেওয়াকে মোটেই ভালো চোখে দেখেননি তিনি | আর তা স্পষ্ট হল কথার মধ্যে দিয়েই | এদিন হাসপাতাল চত্বরে দাঁড়িয়ে বলেন, আলোচনার মাধ্যমে যে সমস্যার সমাধান সম্ভব, তার জন্য কর্মবিরতি অহেতুক | বৃহস্পতিবার সকালবেলায় সরকারি ভাবে এই কর্মবিরতি ও আন্দোলনকারী চিকিৎসকদের উদ্দেশ্যে স্বাস্থ্য দফতর একটি প্রেস বিবৃতি প্রকাশ করেন | সেখানে তাঁদের আহ্বান করা হয় বিকেল চারটের মধ্যে কর্মবিরতি উঠিয়ে কাজে যোগ দেওয়ার জন্য | কাজে যোগ না দিলে অনিচ্ছুক ডাক্তারদের হোস্টেল ছাড়তে বলেন তিনি| পাশাপাশি বলেন, চিকিৎসকদের হেনস্থা দুঃখজনক | তাঁর চিকিৎসার খরচ ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার নিয়েছে| পরিবারের লোকেল সঙ্গে দেখা করেছেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রীও| তারপরও অসংখ্য মানুষের দুর্ভোগের কারণ এই কর্মবিরতির পিছনে রাজনৈতিক রং দেখছেন তিনি |  বিজেপি ও সিপিআইএমের চক্রান্তে বহিরাগতরা এই আন্দোলনে ইন্ধন যোগাচ্ছে বলে মত তাঁর

মুখ্যমন্ত্রীর এই ইস্যুর রাজনীতিকরণের তীব্র বিরোধীতা করেন বিজেপি নেতা মুকুল রায় |  তিনি বলেন ,অবিলম্বে মমতা ব্যানার্জির রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দেওয়া উচিৎ|

এসএসকেএমে দাঁড়িয়ে বলা মুখ্যমন্ত্রীর কথায় তীব্র আপত্তি জানিয়েছেন আন্দোলনরত জুনিয়র ডাক্তারেরা |  এসএসকেএমে অবস্থানরত এক জুনিয়র ডাক্তারের কথায় মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিেই জোর করে একপ্রকার ইমার্জেন্সি খোলা হয় |  তিনি ওই চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা না বলে সরাসরি রোগীদের মধ্যে চলে যান |  সেখানে তাঁর কথাগুলোকে তাঁরা একে একপ্রকার প্রশাসনিক হুমকি বলে মনে করে গণপদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা |  সাগরদত্ত মেডিক্যাল কলেজ থেকে ইতিমধ্যেই ১৮জন চিকিৎসক সেই পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে | এরপর হঠাৎই মুখ্যমন্ত্রীর সেখানে পৌঁছনো ও বাক্যবাণে পরিস্থিতি আরও ঘোরালো হয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা |  বিদ্যাসাগরের মূর্তি উন্মোচনের দিনই যদি তিনি অবস্থানরত চিকিৎসকদের সঙ্গে দেখা করতেন,তবে এই জটিলতা তৈরি হোতো না বলে মনে করছেন তাঁরা | এরইমধ্যে এনআরএসে বহিরাগতদের সঙ্গে অবস্থানরত জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় |  ইতিমধ্যেই পাঁচ অভিযুক্তকে চিহ্ণিত করে তাঁদের গ্রেফতার কর হয়েছে বলে ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন রাজ্য সবার সাংসদ তথা আইএমএ-র সর্বভারতীয় সভাপতি ডাঃ শান্তনু সেন | এই ঘটনার প্রতিবাদে দিল্লিস্থিত এইমস শুক্রবার ১২ঘন্টার জন্য তাদের পরিষেবা বন্ধ রেখে জুনিয়রদের পাশে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা করেছে |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here