দার্জিলিং পৌরসভা ভেঙে দিতে নির্দেশিকা জারি রাজ্য সরকারের

0

Last Updated on

ভেঙে দেওয়া হল দার্জিলিং পুরবোর্ড| মঙ্গলবার এই মর্মে এক নির্দেশিকা জারি করল রাজ্য সরকার | জারি করা নির্দেশিকায় অতিরিক্ত জেলা শাসক (এ ডি এম জি ) পৌরসভার প্রশাসকের দায়িত্বভার দেওয়া হয় | এই দায়িত্বের মেয়াদ ছয়মাস অবধি থাকবে বলে নির্দেসিকায় উল্লেখ | এর মধ্যেই ভোটের মাধ্যমে নতুন পুরবোর্ড গঠন করে নতুন পুরবোর্ড গঠন করে তাদের হাতে দায়িত্বভার ন্যস্ত করবেন ।
৩২টি আসনের মধ্যে দুটি আসন খালি ছিল দার্জিলিং পুরসভায় | বাকি পুরপ্রতিনিধিদের মধ্যে ২৯ মে ১৭ জন চেয়ারপার্সেন (পুরপ্রধান )প্রতিভা রাইয়ের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনেন । বিমল গুরুং পন্থী এই পৌরপ্রতিনিধিরা বেশ কিছুদিন আত্মগোপন করে পরবর্তীকালে ৮ই জুন সরাসরি বিজেপিতে যোগদান করেন | কয়েকদিন ধরে চলতে থাকা দার্জিলিং পৌরসভার এই টালমাটাল অবস্থা নিয়ে কোন বৈঠক করা সম্ভব না হওয়ায় এই পৌরসভায় হাওড়া পৌরসভার মতই প্রশাসক বসানো ছাড়া আর কিছু করা সরকারের পক্ষে একপ্রকার অসম্ভব ছিল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা |
লোকসভা ভোটের আগে বিমল গুরুং বিজেপির সঙ্গে পাহাড়ে জোটের ঘোষণা করে রাজু বিস্তের সমর্থনে তাদের সমর্থকদের ভোট পাইয়ে দিয়েছিল বলেই বিজেপি প্রার্থীর ভোটের ব্যবধান অনেকটাই বেড়ে যায় বলে মত পাহাড়বাসীর| গা ঢাকা দিয়ে থাকা জিটিএ-র চেয়ারম্যান বিমল গুরুং ও সাধারণ সম্পাদক রোশন গিরির সঙ্গে বিজেপি নেতৃত্বের সুস্পষ্ট যোগাযোগের অভিযোগ বারবার তুলেছিল শাসক শিবির | এবার দার্জিলিং পুরসভার ১৭ জন বিমল পন্থী পৌরপ্রতিনিধির বিজেপিতে যোগদান বিমল গুরুং ও বিজেপির আঁতাতকে আরও প্রবলভাবে সামনে নিয়ে এল বলে বলছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা | এই মুহূর্তে ভোট হলে বিজেপি অনেকটাই সুবিধেজনক অবস্থায় থাকায় ওই পৌরসভা জিততে তাদের বিশেষ বেগ পেতে হবেনা | আর তাদের হাত ধরেই পাহাড়ে ফের আর একবার নিজের শাসনকে ফিরে পেতে মরিয়া বিমল ও তার অনুগামীদের এটি একটি রাজনৈতিক কৌশল বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরাই |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here