বিশ্বভারতী ক্যাম্পাসেই উদ্ধার যুবক যুবতীর মৃতদেহ,নিরাপত্তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন

0

Last Updated on

বীরভূম:- বড়সড় প্রশ্নের মুখে ঐতিহ্যবাহী বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা| বেশ কিছুদিন ধরেই প্রবীণ আবাসিকেরা নিয়ম-কানুন শিথিল হওয়ার অভিযোগ করছিলেন|একাধিক সময়ে তাঁরা বলেছেন যে ক্যাম্পাস আর আগের মত সুরক্ষিত নয়| নতুন প্রজন্মের লাগাম ছাড়া ঔদ্ধত্যকেই তাঁরা দায়ী করেছিলেন অনেকাংশে| শুক্রাবর বিশ্বভারতীর ক্যাম্পাসের ভিতরেউদ্ধার এক যুবক ও যুবতীর মৃতদেহ কি তবে সেই প্রশ্ন গুলোকে আর একবার সামনে নিয়ে এল? ঘটনাj জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় বিশ্বভারতী চত্বরে|
শুক্রবার রাত ১১টা নাগাদ বিশ্বভারতীর নিরাপত্তারক্ষীরা বিশ্বভারতীর ক্যাম্পাসের মধ্যে আম্র কুঞ্জ ও চীনা ভবনের মাঝে ওই যুগলকে মৃত অবস্থায় পরে থাকতে দেখতে পান| সঙ্গে সঙ্গেই খবর দেওয়া হয় স্থানীয় শান্তিনিকেতন থানায়|ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে নিয়ে আসে দেহ দুটি।তদন্তে নেমে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে যুগল।

মৃত যুবকের পরিচয় জানা যায়|তাঁর নাম সোমনাথ মাহাতো। বাড়ি বোলপুর জামবুনিতে। সে বোলপুরের শ্রীনন্দা হাইস্কুলের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র। যদিও মৃত ওই যুবতীর পরিচয় এখনও পাওয়া যায় নি।
আম্রকুঞ্জ তথা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে রাত্রি ৮ টার পর বহিরাগতদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে| তবে কীভাবে নিরাপত্তা রক্ষীদের নজর এড়িয়ে ওই যুগল সেখানে প্রবেশ করল এবং আত্মহত্যা করল? প্রশাসনিক শিথিলতাকেই আর একবার সামনে নিয়ে এল এই ঘটনা,মনে করছেন স্থানীয় মানুষ ও প্রবীণ আবাসিকেরা|

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here