শ্রমিকের পচাগলা দেহ উদ্ধার মিলের ভিতর থেকে,আঙুল কর্তৃপক্ষের দিকে

0
unnatural-death-of-a--labour

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক : ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ : শুক্রবার সকালে হাওড়ার সাঁকরাইলে মানিকপুর ডেল্টা জুট মিলে এক শ্রমিকের পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার হয়। গত ৬ দিন ধরে মৃত এই শ্রমিককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। নিখোঁজ হওয়ার ৬ দিন পর মিলের ভিতর থেকে সুভাষ রায় নামের ওই শ্রমিকের পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। অস্বাভাবিক এই মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই মিলে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে।

জানা গিয়েছে, দীর্ঘ দুই দশক ধরে পিএফ, গ্র‍্যাচ্যুইটি, ইএসআই এর বকেয়া টাকা পাননি হাওড়া সাঁকরাইলের মানিকপুর ডেল্টা জুটমিলের শ্রমিকরা। দিনের পর দিন এইভাবে বকেয়া টাকা না মেলায় প্রতিবাদে আমরণ অনশনে শুরু করেন এখানকার শ্রমিকরা। মিলের গেটের সামনেই বিক্ষোভ ও অনশন কর্মসূচী চালিয়ে যাচ্ছেন কয়েকশ শ্রমিক।

আরও পড়ুন – ইসিএলের পরিত্যক্ত খনির মুখ থেকে বেরোনো আগুনে কেন্দায় ছড়াল আতঙ্ক

সুভাষ রায় নামে ওই মৃত শ্রমিকের মৃত্যুর কারণ হিসেবে শ্রমিকদের অভিযোগ, প্রতিবাদে সামিল হওয়ার কারণেই ওই শ্রমিকের এমন পরিণতি।

বকেয়া টাকা না মেলায় প্রতিবাদ করায় কুড়ি জন শ্রমিককে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয় মিল কর্তৃপক্ষ দ্বারা। এতেই আরো অসহিষ্ণু হয়ে ওঠেন মিল শ্রমিকরা।
অভিযোগ, মিল কর্তৃপক্ষ অন্যায় ভাবে বরখাস্ত করেছে ওই কুড়ি জন শ্রমিককে। সমস্ত ঘটনার প্রতিবাদে মিলের গেটের সামনেই শ্রমিকরা আমরণ অনশন শুরু করেন তাঁরা।
কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ উঠেছে যে তারা অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিকদের পর্যন্ত তাদের দেয় বকেয়া পাওনা পাচ্ছেন না। ইএসআই বাবদ টাকা শ্রমিকদের থেকে কাটা হলেও সেই টাকা জমা দিচ্ছে না কর্তৃপক্ষ।ফলে চিকিৎসার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন হাজার হাজার শ্রমিক।

শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে অবিলম্বে শ্রমিকদের সমস্ত বকেয়া পাওনা মেটাতে হবে এবং বরখাস্ত করা শ্রমিকদের অবিলম্বে কাজে পুনর্বহাল করতে হবে। তাদের এই সকল দাবি না মেটা পর্যন্ত তারা আমরণ অনশন চালিয়ে যাবেন। এরই মধ্যে সুভাষ রায় নামের ওই শ্রমিকের অস্বাভাবিক মৃত্যুতে স্বাভাবিকভাবেই শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ তৈরি হয়। তারা অভিযোগ করেন তাদের আন্দোলন বন্ধ করানোর জন্যই মেরে ফেলা হল সুভাষ বাবুকে। শ্রমিক বিক্ষোভের আশঙ্কায় মিলে আগে থেকেই মোতায়েন করা হয় র‍্যাফ।

আরও পড়ুন – মহিলার সঙ্গে অশালীন আচরনের শাস্তি দিলো প্রমীলাবাহিনী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here