তোলা না দেওয়ায় গাড়ির চালককে ব্যাপক মারধরের অভিযোগ ,পাল্টা মার পুলিশকেও

0

Last Updated on

পুলিশের দাবি মতো তোলা দিতে না চাওয়ায় মাছের গাড়িকে ধাওয়া করে ব্যাপক মারধরের অভিযোগ উঠল সেই গাড়ির চালককে| তাও আবার নিজের থানা এলাকা পেরিয়ে অন্য থানায় ঢুকে এই মারধরের ঘটনায় অবিযুক্ত হল পুলিশ| দুর্গাপুরের বেনাচিতি বাজারের এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায় । গুরুতর আহত অবস্থায় ওই গাড়ির চালককে ভর্তি করা হয়েছে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে । বেনাচিতি বাজারের ব্যবসায়ীরা পাল্টা পুলিশকে মারধর করে বলে অভিযোগ । কর্তব্যরত পুলিশ ও তার সহযোগীর কাছ থেকে অনেক টাকাও উদ্ধার হয়েছে । অভিযোগের তির নিউটাউনশিপ থানার এক সাব ইন্সপেক্টর তার সহযোগী দুই সিভিক কর্মী ও পুলিশের গাড়ি চালকের বিরুদ্ধে ।

সোমবার কাক ভোরে ময়না থেকে বেনাচিতির ঘোষ মার্কেটে আসছিল একটি মাছের গাড়ি । অভিযোগ, মুচিপাড়ার কাছে নিউটাউনশিপ থানার পুলিশের একটি টহলদারি জিপ গাড়িটিকে আটকে টাকা দাবি করে । পাঁচশো টাকা দাবি করে বলে অভিযোগ । এর পর ওই মাছের গাড়ি চালক গাড়িটি নিয়ে সোজা বেনাচিতি ঘোষ মার্কেটে চলে আসে । নিউটাউনশিপ থানার পুলিশ-গাড়িটি মাছের ওই গাড়ি ধাওয়া করতে করতে বাজারে এসে পৌঁছয় । বেনাচিতির ঘোষ মার্কেটে এসে গাড়িটিকে ধরে ফলার পর ওই গাড়ি চালককে বেদম প্রহার করে পুলিশের লোকজন,জানান কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী| ।
ওই গাড়ির চালক সুধাংশু মণ্ডলকে নির্মমভাবে মারধর করার পাশাপাশি ওই গাড়ির খালাসী ও আর কর্মীকেও মারধর করে পুলিশ ও তার সাঙ্গোপাঙ্গেোরা । তাতে মারাত্মকভাবে জখম হন চালক সুশান্ত মন্ডল ও দুই কর্মী| এর পরেই ক্ষোভে ফেটে পড়ে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা । উম্নত্ত ব্যাবসায়ীরা মারধর করতে থাকেন নিউ টাউনশিপ থানার ওই সাব ইনস্পেক্টরকে| তখনই তার পকেট থেকে গোছা গোছা টাকা উদ্ধার করে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা । বাদ যায়নি সঙ্গে থাকা দুই সিভিক কর্মী ও পুলিশ গাড়ির চালকও| তাদেরকেও ব্যাপক মারধর করে উত্তেজিত জনতা । ঘটনাস্থল দুর্গাপুরের এ জোন ফাঁড়ির অন্তর্গত হওয়ায় খবর পেয়ে এ জোন ফাঁড়ির পুলিশ এসে এই চারজনকে উদ্ধার মারমুখী জনতার হাত থেকে রক্ষা করে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here