স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে একগুচ্ছ অভিযোগ তুলে স্কুলে তালা দিলেন অভিভাবকেরা

0

Last Updated on

সোশিও ইকোনমিক অ্যান্ড কাস্ট সেনসাসের রিপোর্ট ২০১১অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গের প্রাইমারি শিক্ষার মানের নিরীখে দেশের মধ্যে প্রথম দশে না থাকলেও ১২নং স্থানে ছিল পশ্চিমবঙ্গ | আর সেকেন্ডরি ও হায়ার সেকেন্ডারি শিক্ষা ক্ষেত্রে রাজ্যের অবস্থান লজ্জার | ৩৩তম স্থানে রয়েছে এ রাজ্য |
এরপর অবশ্য কেটে গিেযছে অনেকগুলি বছর | সাইকেল ও মিড ডে মিলের টানে হয়তো বা কিছু ছেলেমেয়ে গ্রামের স্কুল গুলিতে যাচ্ছে | কিন্তু শহরের অবস্থা তথৈবচ | শহরের একাধিক প্রাথমিক স্কুল প্রায় বন্ধ হওয়ার জোগাড় | কোথাও প্রাথমিক স্কুল গুলির বাড়ির ভগ্নদশা,তো আবার কোথাও শিক্ষক থাকলে পড়ুয়ার দেখা নেই |

জেলার ক্ষেত্রেও একাধিক সমস্যা দেখা যায় | স্কুল ছুট কমাতে প্রশাসন কড়া পদক্ষেপ করলেও নানা অভাব-অভিযোগ প্রায়শই শোনা যায় অভিভাবকদের তরফে | তেমনই নানাবিধ অভিযোগ দিনের পর দিন কর্ণপাত না করায় শেষ পর্যন্ত শিক্ষক -শিক্ষিকাদের স্কুল থেকে বের করে দিয়ে স্কুলে তালাবন্ধের মাধ্যমে বিক্ষোভে প্রদর্শন করলেন একদল অভিভাবক |

ছাত্রছাত্রীদের ঠিকমতো মিড ডে মিলের খাবার খেতে দেওয়া হয়না, বিদ্যালয়ে শিক্ষক শিক্ষিকারা সময়মতো আসেননা এবং ছাত্রছাত্রীদের দিয়ে বাজার করানো সহ একগুচ্ছ অভিযোগ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে তুলে তার প্রতিবাদে সোমবার বিদ্যালয় থেকে শিক্ষক শিক্ষিকাদের বের করে দিয়ে বিদ্যালয় তালাবন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাল উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জের বারোগন্ডা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকেরা । এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে রায়গঞ্জ ব্লকের ১৩ নম্বর কমলাবাড়ি গ্রামপঞ্চায়েতের বারোগন্ডা গ্রামেও ।

যদিও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন । প্রতিবাদী অভিভাবকদের দাবি, অবিলম্বে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বিদ্যালয়ের পঠন পাঠন ও মিড ডে মিল স্বাভাবিক করার লিখিত প্রতিশ্রুতি না দেওয়া পর্যন্ত তারা স্কুল বন্ধ করে রাখবেন । বিদ্যালয়ের টিচার ইন চার্জ সমস্ত বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন ।

রায়গঞ্জ ব্লকের ১৩ নম্বর কমলাবাড়ি গ্রামপঞ্চায়েতের বারোগন্ডা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকদের অভিযোগগুলিকে সামনে রেখে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন স্কুলের সামনেই | স্কুল খুলতেই ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকেরা স্কুলে এসে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন । যদিও বারোগ্রাম প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টিচার ইন- চার্জ প্রভা রায় বর্মন জানিয়েছেন, মিড ডে মিলের খাবার দেওয়া নিয়ে যে অভিযোগ অভিভাবকেরা করছেন তা একেবারেই ভিত্তিহীন । আরও বলেন, বিদ্যালয়ের সমস্ত শিক্ষক শিক্ষিকারা নিয়মিত বিদ্যালয়ে আসেন এবং সুষ্ঠুভাবে পঠন পাঠন হয় ।

তবে বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের দিয়ে বাজার করানোর বিষয়টি একপ্রকার স্বীকার করে নিয়ে টিচার ইনচার্জ প্রভা দেবী জানান, আগের প্রধান শিক্ষক ছেলেদের দিয়ে বাজার করাতেন, সেই ধারাই বজায় রাখা হয়েছে । বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের অভিভাবকদের বক্তব্য বারোগন্ডা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঠন পাঠন ও মিড ডে মিলের যে যে অভিযোগগুলি তাঁরা করেছেন সেগুলির মীমাংসা না হোয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তাঁরা | অভিভাবকদের এই আন্দোলনের জেরে স্তব্ধ হয়ে যায় স্কুলের পঠন পাঠন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here