গভীর রাতে সাত দোকান পুড়ে খাক শিলিগুড়িতে ,অভাব সরকারি নজরদারির

0

Last Updated on

রাজ্যবাসীর মনে নন্দরাম মার্কেটের ছবি মিলিয়ে যাওয়ার আগেই সেই স্মৃতিকে আরও একবার উসকে দেয় শহরের অন্যতম ব্যস্ত পাইকারি বাজার বাগরির আগুন | এই রকম বড় আগুনের পরই রে রে করে অন্য সব বড় বাজারগুলির ছানবিনে নেমে পড়েন রাজ্যের নানা দফতরের দন্ডমুন্ডরা | জেলা বাজারগুলিতেও খোঁজ পড়ে বেনিয়মের| কিন্তু খুব বেশি হলে তা নিয়ে দিন সাতেকের তোলপাড়| আবার থিতিয়ে পড়ে সব কিছু | যে যে বিধি নিয়ম মানা দরকার তাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বাপ-ঠাকুরদার আমল থেকে একইভাবে ব্যবসা করে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা | হেলদোল নেই কারোরই | তারই মাসুল দেয় শহর ও জেলার বাজারগুলি | তেমনই বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে খাক হয়ে গেল শিলিগুড়ির বিধান মার্কেটের সাতটি দোকান । সূত্রের খবর, এদিন গভীর রাতে বৈদ্যুতিন সরঞ্জাম ও কসমেটিকস রাখা ওই দোকানগুলিতে আগুন লাগে | দাহ্য হওয়ায় নিমেষে সে আগুন ছড়িয়ে পড়ে,এক দোকান থেকে অন্য দোকানে | খবর পাওয়া মাত্র দমকলের পাঁচটি ইঞ্জিন এলেও ততক্ষণে পুড়ে গিয়েছে ওই সাত দোকানের সমস্ত জিনিস । তিনঘন্টার লড়াইয়ের পর আগুন নেবাতে সক্ষম হন দমকল কর্মীরা| আগুন লাগার খবর পেয়ে ছুটে আসেন দোকানের মালিকেরা | কান্নায় ভেঙে পড়েন চোখের সামনে পুড়ে যেতে দেখে| জানান, প্রতিটি দোকানেই ছিল লক্ষাধিক টাকার জিনিস | ছাইয়ের গাদা থেকে কিছু জিনিস বাঁচানোর আশায় খুঁজতে শুরু করেন| আগুন লাগার সঠিক কারণ এখনও জানা যায় নি। তবে শট্ সার্কিট থেকেই এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড বলে প্রাথমিকভাবে দমকলকর্মীদের অনুমান । পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন দমকল আধিকারিকরা । তাতে মার্কেট অগ্নি-নির্বাপণ ব‍্যবস্থা সঠিক ছিল কিনা ,সে বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছেন দমকল কর্মীরাই| বাজারের ভিতর তৈরি হয়ে থাকা জতুগৃহে প্রাণ হাতে নিয়ে বিকিকিনি চলায় প্রশ্ন উঠছে প্রশাসনিক অবহেলার |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here