কাদায় বেহাল রাস্তার জন্য খালি পায়ে যায় এই বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা

0

Last Updated on

বর্ষাকালে কাদার জন্য জুতো থাকে না পায়ে | বড় থেকে ছোট এটাই নাকি রেওয়াজ | না কোন উপাচার নয় | জুতো না পড়ার কারণ গোটা পথ জুড়েই প্রচন্ড কাদা | প্যাচ প্যাচে কাদায় পা ডুবে থাকায় চলতে ফিরতে অসুবিধে হয় | চটি বা জুতো যাই হোক তার যা বেহাল দশা হয় তাতে চলা দুষ্কর | তাই বিনা জুতোতেই স্কুলে যায় পড়ুয়ারা | এমনই ছবি উঠে এল আমাদের ক্যামেরায় । ঘটনাটি রানীগঞ্জ থানার অন্তর্গত রানীসায়ের আদিবাসী অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালযয়ের ।
জুতো না পড়ার কারণটা স্কুলের সবার জানা | তাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক থেকে অভিভাবক, সকলে নির্দ্বিধায় জানালেন এই স্কুলের অধিকাংশ ছাত্র-ছাত্রী পলাশডাঙ্গায ,কোড়াপাড়া,রানিসায়ের টিবি হাসপাতাল এলাকা থেকে আসে । স্কুলটির অবস্থান এমনই যে এই স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীদের আসতে গেলে এক থেকে দেড় কিলোমিটার মেঠো রাস্তার উপর দিয়ে আসতে হবেই প্রতিদিন । বর্ষাকালে মাঠের রাস্তায় কাদা থাকে এ আর কার না জানা । ফলে ছাত্র-ছাত্রীরা জুতো পড়ে আসতে পারে না । তাই সরকার থেকে জুতো মোজা দেওয়া হলেও বাচ্চাদের জুতো না পড়ার কারণ হিসাবে প্রধান শিক্ষক থেকে অভিভাবক সবাই মেঠো রাস্তার কাদাকে দায়ী করেছেন ।

অন্যদিকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি নির্দেশ দিয়েছেন বর্ষার দিনে খালি পায়ে চলা চলবে না । অথচ স্কুলের বাচ্চাদের পায়ের জুতো নেই শুধু কাদার জন্য ।

ঘটনাটি আসানসোল পৌরনিগমে জানানো হয় | জানা যায় এমন বেহাল রাস্তার কারণে জুতো পড়তে পারছে না স্কুলের বাচ্চারা তেমন তাদের জানা নেই | এলাকার প্রায় সব স্কুলের পড়ুয়ারাই জুতো ব্যবহার করে | তবে রানীসায়ের আদিবাসী অবৈতনিক স্কুলে কেন এই ধরনের ঘটনা ঘটছে তা খতিয়ে দেখার আশ্বাস দেন পৌরনিগমের কর্তারা |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here