এবার ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগানে বৃদ্ধাকে নগ্ন করে মারধরের অভিযোগ

0

Last Updated on

বীরভূম: রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ট্যুইট করে প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছিলেন লোকসভা ভোটের আগে বা পরে রাজনৈতিক হিংসাতে কোন খুন এ রাজ্যে হয়নি| যে খুনগুলি নিয়ে রাজনৈতিক চর্চা চলছে তা নিতান্তই পারিবারিক বিবাদ| স্বজন হারানো বিজেপি সমর্থকদের সেই পরিবারগুলির সদস্যরা নরেন্দ্র মোদির শপথে উপস্তিত থাকায় মুখ্যমন্ত্রী তাঁর আমন্ত্রণ রক্ষা করেননি| একই সুর দলের কর্মীদের গলায়| বীরভূমে ধোবাজল গ্রামে এক বৃদ্ধ দম্পতিকে মারধরের অভিযোগে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব বললেন, শাসক নয়, একেবারেই ব্যাক্তিগত স্তরে ঝগড়াঝাটি থেকে মারধরের ঘটনা ঘটেছে| শাসকদলের কেউ জড়িতই নয় এসবে|

বৃহস্পতিবার নরেন্দ্র মোদির প্রধানমন্ত্রী পদে দ্বিতীয়বার শপথ গ্রহণের সময় এই গ্রামের এক বৃদ্ধ “জয় শ্রীরাম” বলে চিৎকার করে ওঠেন । সেখান থেকেই ঘটনার সূত্রপাত| অভিযোগ, শুক্রবার সকালে ওই বৃদ্ধের স্ত্রী বাড়ির বাইরে জল আনতে গেলে স্থানীয় তৃণমূলের বুথ সভাপতি সুবোধ মণ্ডলের স্ত্রী নীলিমা মন্ডল তাঁকে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করে । লাথি,কিল ছাড়াও চুল টেনে ছিঁড়ে দেওয়ার অভিযোগ করেন ওই বৃদ্ধা | মারতে মারতে তাঁকে বিবস্ত্র করে দেওয়া হয় | বৃদ্ধা এলাকায় এই ঘটনার কথা সবাইকে জানালে এই ঘটনাকে উত্তেজনা তৈরি হয় সাংরা গ্রাম পঞ্চায়েতে |

এই মর্মে শুক্রবার সকালে বৃদ্ধ দম্পতি আমোদপুর ফাঁড়িতে এসে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করে এবং উপযুক্ত শাস্তির দাবি করে|

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সাঁইথিয়া ব্লকের তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি প্রশান্ত সাধু| তাঁর দাবি, এটি রাজনৈতিক কোনো সংঘর্ষ নয় । পারার টিউবওয়েল থেকে জল নিতে গিয়ে দুই মহিলার মধ্যে বচসার ঘটনা| স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব এই ঘটনার সঙ্গে কোন ভাবেই জড়িত নয় |উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে বিজেপির লোকজন এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূলের নাম জড়াচ্ছে|

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here