জাতীয় সড়কে বাড়ছে বেপরোয়া যান ও অবৈধ পার্কিংয়ের বলি

0

Last Updated on

চেনা জাতীয় সড়ক রাতে হয়ে যায় একেবারে অন্য রকম | বদলে যায় চরিত্র | সকালে কিছুটা হলেও নিয়ন্ত্রিত চলাচল | আর রাত বাড়লেই দাপট বাড়ে অনিয়ন্ত্রিত গাড়ির সংখ্যা | রাতে অবশ্য রাস্তার দখল নেয় দশ চাকা বা তারও বেশি চাকার ট্রাক বা ট্যাঙ্কার | যেন গোটা রাস্তাতে তখন তাদেরই দাদাগিরি | চারচাকা ছোট গাড়িকে পাত্তা না দিয়ে বেপরোয়া চলাচল অনেক সময়ই প্রাণ কেড়ে নেয় | তার উপর যেখানে সেখানে গাড়ি দাঁড় করিয়ে রাখা এবং যখন তখন জাতীয় সড়কের উপর উঠে আসাতে দুর্ঘটনা ঘটে প্রায়শই | তেমনই দুর্গাপুরের বিভিন্ন গুরুত্বপুর্ণ রাস্তার দুধারে অহরহ দাঁড়িয়ে থাকছে বড় লরি , ট্রলারের মত ভারি গাড়ি । ফলে রাস্তার পরিসর হচ্ছে সংকীর্ণ । এর পাশাপাশি অবৈধ পার্কিং থেকে হঠাৎ করে এই সব ভারি গাড়ি রাস্তায় উঠে পড়ছে , ফলে দুর্ঘটনার সম্ভাবনা বাড়ছে ।

মঙ্গলবার রাতে ওই সড়কে একটি মর্মান্তিক পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয় এনজিও সংস্থার ২ মহিলা সদস্যের । ২ নং জাতীয় সড়কে কাদা রোডের গ্যামন এলাকায় । দাঁড়িয়ে থাকা ট্রলারের পিছনে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ধাক্কা মারে তাদের চারচাকা গাড়ী,এর জেরে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় চন্দনা শ্যাম ( ৫৫ ) ও ডলি বাদ্যকরের । গুরুতর জখম হন কালিসাধন গড়াই , টুম্পা বাদ্যকর ও বিধানচন্দ্র দাস । এঁরা সবাই গোপালমাঠের বাসিন্দা ।

কালিসাধন গড়াইয়ের পরিবার জানান যে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে থাকা গাড়ীর কারণে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে । তারা বলেন, কিন্তু মেন গেট থেকে বনগাঁ পর্যন্ত জাতীয় সড়কের অবস্থা অত্যন্ত খারাপ,এর সঙ্গে রাস্তার দুধারে অবৈধ পার্কিংয়ের ফলে রাতের দিকে বাড়ছে দুর্ঘটনা প্রবণতা । সাধারণ মানুষের প্রশ্ন রাতে জাতীয় সড়কে টহল দেওয়া পুলিশেরা কেন কোন হেলদোল নেই ? কেনই বা পুলিশ অবৈধ পার্কিংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না ? দায়সারা উত্তরে কাজ এড়াচ্ছে কি প্রশাসনের কর্তা-ব্যক্তিরা ?

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here