ঘন জনবসতিপূর্ণ এলাকায় কীভাবে অনুমোদন পেল ভস্মীভূত গেঞ্জি কারখানাগুলি?

0

Last Updated on

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বিধ্বংসী আগুনে ভস্মীভূত গেঞ্জি কারখানা। নিউব্যারাকপুরের বিলকান্দা গ্রাম পঞ্চায়েতের ঘটনা । আগুনে পুড়ে খাক কয়েক লক্ষ টাকার সম্পত্তি । কুড়িটি দমকলের ইঞ্জিন যায় ঘটনাস্থলে । ছুটে আসেন দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু । যদিও প্রাণহানির কোন খবর নেই। প্রথমে যে গেঞ্জির কারখানা থেকে আগুন ছড়ায় আরও দুটি গেঞ্জির কারখানা| রাতে আগুন যখন নজরে আসে রাত দশটা বেজে গেছি| আগুনের প্রাবল্য রাত বাড়ার সঙ্গে বাড়ে । সাজিরহাট এলাকার বিলকান্দা এলাকাটি ঘন বসতিপূর্ণ হওয়ায় সমস্যা বাড়ে । ঘটনাস্থলে দমকলের কুড়িটি ইঞ্জিন এসে রাত দুটো নাগাদ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে| সূত্রের খবর ,কারখানার মধ্যে প্রচুর দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে ও আগুন আয়ত্বে আনা দুঃসাধ্য হয়ে ওঠে| অন্যদিকে জনতার ক্ষোভ,অত্যন্ত ঘন জনবসতি পূর্ণ এই এলাকার মধ্যে এতগুলি কারখানা চালানোর অনুমোদন কিভাবে দিল প্রশাসন? পরপর আগুন লাগার ঘটনায় চলতি বছরেই কয়েকমাসের মধ্যে ঘটেছে একাধিক অগ্নিকাণ্ড । প্লাস্টিক চেয়ার কারখানার গোডাউনে আগুন লেগে এই এলাকাতেই প্রাণ হারিয়েছেন অন্ততঃ পাঁচজন । ঘটনাস্থলে মন্ত্রী সুজিত বসু এসে সব অভিযোগ শুনে বলেন, কারখানাগুলির বৈধ কাগজপত্র আছে কিনা খতিয়ে দেখা হবে| কিন্তু এতেও ক্ষোভ প্রশমিত হয়নি এলাকাবাসীর । তাঁরা প্রশ্ন তুলছেন নিরাপত্তার,অনুমোদনের ও বৈধতার ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here