‘কাটমানি’ খাওয়ার অভিযোগে তৃণমূলের বুথ সভাপতিকে ঘেরাও করল ক্ষিপ্ত গ্রামবাসী

0

Last Updated on

মুখ্যমন্ত্রী দলীয় পুরপ্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে মঙ্গলবারেই উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন প্রতিনিধিদের সব কাজে কাটমানি খাওয়ার প্রবণতা প্রসঙ্গকে উথ্থাপন করে | সরকারি প্রকল্প থেকে কাটমানি নিয়ে ব্যক্তিগত সম্পত্তি গোছাতে মন না দিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন এলাকায় গিয়ে মানুষকে সে সুবিধে পাইয়ে দিতে মন দেওয়ার জন্য | নতুবা দুর্নীতি তদন্ত কমিটির সামনে পড়ে জবাবদিহি করতে হবে তাদের | তৃণমূল সুপ্রিমোর এহেন কঠোর মনোভাব ব্যক্ত করার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই এবার প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা প্রকল্পের বাড়ি বাবদ প্রাপ্ত টাকা থেকে ‘কাটমানি’ হস্তগত করার অভিযোগে বীরভূমের ইলামবাজার এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা বুধবার ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকার তৃণমূল সদস্য এবং তৃণমূল সভাপতির বাড়ি ঘেরাও করল । এখানেই শেষ নয় । বুথ সভাপতিকে আটকে রাখা হয় বেশ কিছুক্ষণ । পরে পুলিশ গিয়ে তাকে মুক্ত করে বিক্ষোভকারীদের থেকে | এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় তুমুল উত্তেজনার সৃষ্টি হয় ।

ইলামবাজার থানার অন্তর্গত শ্রীচন্দ্রপুর গ্রামের ঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার টাকা এসেছে যেসকল দরিদ্র মানুষের কাছে , তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ৫০০০ টাকা করে ‘ কাটমানি’ নিয়েছেন তৃণমূল সদস্য উত্তম বাউড়ি এবং তৃণমূল বুথ সভাপতি রাজিব আকুর । এই অভিযোগ তুলে এদিন সকালে ক্ষিপ্ত গ্রামবাসী নেতাদের বাড়ি ঘেরাও করে । বিক্ষোভের সময় তৃণমূল বুথ সভাপতির বাড়িতে তার দলের পতাকা লাগিয়েই আটকে রাখা হলরাজিব আকুরকে।

গ্রামবাসীদের বক্তব্য , ১০০ দিনের কাজের প্রকল্প থেকেও আবাস যোজনায় অভিযুক্তরা ‘কাটমানি ‘ নিত।

যদিও সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন এলাকার তৃণমূল সদস্য উত্তম বাউরী । গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দারা গণমাধ্যমের সামনে টাকা তছরুপের অভিযোগ আনলেও মানতে নারাজ তিনি | তৃণমূলের আরও এক অভিযুক্ত কর্মী সন্দীপ বাউড়ি অবশ্য নিজের মুখেই জানান,তারা টাকা নিতেন যার ভাগ পেত এলাকার বুথ সভাপতি রাজিব আকুর এবং দুখ বাবু |

গন্ডগোলের খবর পেয়ে ইলামবাজার থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং পরিস্থিতি তাৎক্ষনিকভাবে আয়ত্বে আনে |

প্রশ্ন উঠছে দিনের পর দিন দলীয় কর্মীদের এই দুর্নীতি প্রবণতার কথা সত্যি কি জানতে না তৃণমূল সুপ্রিমো থেকে জেলার দলীয় নেতারা ? লোকসভা ভোটে বিপর্যয না হলে সত্যি কি দলের অন্দরের এই দুর্নীতি রুখতে এতটাই উদগ্রীব হতেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ? রাজ্য সরকার বা কেন্দ্রীয় সরকারের স্কিমের টাকা ঠিক কত জন পাচ্ছেন, তার হিসেব রাখার দায়িত্বে থাকা প্রশাসনিক কর্তাদের সাহায্য ছাড়া কীভাবে দিনের পর দিন এই বেনিয়ম চলছিল ? প্রশ্ন করছেন রাজ্যবাসী |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here