সিভিক পুলিশের প্রচেষ্টায় প্রাণে বাঁচলেন অশীতিপর বৃদ্ধা

0

Last Updated on

পুলিশ কমিশনারকে বন্দুক হাতে ছুটোছুটি করতে দেখে যখন রাজ্য রাজনীতি তোলপাড়, তখন পুলিশের নীচু তলার বা একেবারে তৃণমূল স্তরের দুই কর্মীর প্রচেষ্টা বদলে দিয়েছে একটু হলেও পুলিশের প্রতি মানুষের চিন্তাধারা | দুই সিভিক পুলিশের চেষ্টায় প্রাণ বাঁচল অশীতিপর বৃদ্ধা |

প্রতিদিনের মতই ভোরবেলায় ফুল তুলতে বেরিয়েছিলেন পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলী থানার অন্তর্গত নারায়ণপুর গ্রামের বাসিন্দা ৮০ বছরের বৃদ্ধা লক্ষ্মী বিশ্বাস । নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে আরও বহুক্ষণ কেটে যাওয়ার পরও বৃদ্ধা বাড়ি না ফেরায় তার বাড়ির লোক উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে | খোঁজাখুঁজি শুরু করে দেয় তারা । নারায়ণপুরের ঘাটের কাছে লক্ষ্মী দেবীর ব্যবহৃত লাঠিটি পড়ে থাকতে দেখে তার পরিবারের লোকজন আশঙ্কা করে যে বৃদ্ধা বোধহয় নদীতে তলিয়ে গেছে এবং সেই মত তারা তল্লাশিও শুরু করে । ঠিক সেই সময় পূর্বস্থলী হাসপাতাল থেকে খবর আসে বৃদ্ধা হাসপাতালে ভর্তি ।

পরিবারের লোকজন হাসপাতালে পৌঁছে জানতে পারে কুটুরিয়া গ্রামের দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার পিন্টু সর্দার ও তন্ময় পালের প্রচেষ্টায় প্রায় পাঁচ ঘণ্টা জলে ভেসে থাকা বৃদ্ধাকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে । ওই দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার জানান় তারা যখন কুটুরিয়া ঘাটে বসে ছিলেন সেই সময় দুই হাত উপরে তুলে কাউকে ভেসে থাকতে দেখেন তারা । তৎক্ষণাৎ ওই দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার নৌকা করে বৃদ্ধা লক্ষ্মী বিশ্বাসকে উদ্ধার করে পূর্বস্থলী হাসপাতালে ভর্তি করেন । এরপর বৃদ্ধার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে নবদ্বীপ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় । এই দুই সিভিক ভলেন্টিয়ারের তৎপরতায় প্রাণ বাঁচল অশীতিপর ওই বৃদ্ধার ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here