পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে এমএএমসি আবাসনের অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ আড্ডার,পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ বাসিন্দাদের

0

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক : বুধবার সকালে দুর্গাপুরের এমএএমসি টাউনশিপের দুটি আবাসনে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদের অভিযান চালাল আসানসোল দুর্গাপুর ডেভেলপমেন্ট অথরিটি (এডিডিএ)। এই কলোনির সিডি টাইপের দুটি আবাসনে এদিন অভিযান চালায় এডিডিএ । এই ঘটনায় এডিডিএর বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উঠেছে এমএএমসি-এর এক্স এমপ্লয়ি স্যোশাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোশিয়েশনের পক্ষ থেকে।

বুধবার সকালে নিউ টাউনশিপ থানার পুলিশের সহায়তায় এই উচ্ছেদ অভিযান চালান এডিডিএর আধিকারিকগণ । উচ্ছেদ অভিযানের শুরু করার পর পুলিশ সহ এডিডিএ আধিকারিকদের বাধা দেয় এমএএমসি এক্স এমপ্লয়ি সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা। কিন্তু এই অভিযান বন্ধ করাতে পারেননি তাঁরা । জনৈক বসন্ত চ্যাটার্জি নামে এমএএমসি প্রাক্তন কর্মী এই আবাসন দখল করে আবাসনের ভিতরে নির্মান কার্য চালাচ্ছিলেন। এডিডিএ’র কর্মীরা সেই সমস্ত নির্মাণ ভেঙে দেন। এরপর ওই দুটি আবাসনে তালা লাগিয়ে দেওয়া হয় |

এমএএমসি এক্স এমপ্লয়ি সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য গৌতম মান্নার বক্তব্য, এমএএমসি কলোনির প্রচুর আবাসনে বাইরের মানুষ অবৈধভাবে দখলদারি করে বসবাস করছে। সেদিকে কোনো নজর নেই এডিডিএ’র। শুধুমাত্র উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে এই দুটি আবাসনের ওপর অভিযান চালিয়েছে তারা। বন্ধ হয়ে যাওয়া এমএএমসি কারখানার আবাসনগুলিতে প্রায় দুশোর ওপর জবরদখল রয়েছে বলে জানান অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা। আর এর নেপথ্যে রয়েছে স্থানীয় রাজনৈতিক প্রভাবশালী ব্যক্তিসহ এডিডিএর একাংশের মদত এবং এর পেছনে মোটা অঙ্কের টাকার লেনদেন রয়েছে বলে অভিযোগ তাঁদের।

আরও পড়ুন:আর্থিক প্রতারণায় অভিযুক্ত অন্ডাল বিমান নগরী নির্মাণকারী ভিন রাজ্যের সংস্থা, গ্রেফতার ২ কর্ণধার https://risingbengal.in/state/arthik-protaronai-jukto-mumbai-er-sangostha/

২০০২ সালে এমএএমসি বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর ওই টাউনশিপের দায়িত্ব হস্তান্তর হয় এডিডিএ র হাতে। স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার সাথে এমএএমসি র আইনি জটিলতায় এই আবাসনগুলি কর্মীদেরকে দেওয়া সম্ভব হয় নি। তৎকালীন অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরা কোয়ার্টার বাবদ একটি নির্দিষ্ট অঙ্কের টাকা জমা করেছিলেন লিকুইডিটরের কাছে। আর বাকি আবাসনগুলি পড়েছিল অরক্ষিত ভাবে। এরপর এই অরক্ষিত আবাসনগুলি একের পর এক দখল হতে থাকে । সম্প্রতি এক্স এমপ্লয়ি অ্যাসোসিয়েশন হাইকোর্ট থেকে একটি রায় বের করেছে। যে রায়ে অবিলম্বে সেইসব এক্স এমপ্লয়ার যাঁরা আবাসন বাবদ টাকা জমা করেছিলেন তাঁদেরকে এই আবাসনগুলি বিতরণ করে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে দাবী করেন অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা। যদিও এখনও পর্যন্ত এ ব্যাপারে এডিডিএ’র তরফ থেকে কোনও উদ্যোগ নেওয়া হয় নি বলে অভিযোগ অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের।

এডিডিএ র বিরুদ্ধে এই পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি উপস্থিত আধিকারিক অর্পণ চক্রবর্তী । এই ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই যথেষ্ট চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয় এমএএমসি কলোনিতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here