শ্রীলঙ্কা বিস্ফোরণের পিছনে কি ইসলামীয় জঙ্গী সংগঠন?

0

Last Updated on

রবিবার সকালে ইস্টার জমায়েতের সময় একাধিক বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছিল শ্রীলঙ্কার মাটি| প্রাথমিকভাবে শতাধিক লোকের আহত ও ৫২ জন নিহত হওয়ার খবর থাকলেও তা পরে বেড়ে গিয়ে আহতের সংখ্যা হয় ৫০০| মৃতের সংখ্যাটি হয়ে দাঁড়ায় এখনও অবধি ২০৯| বিভিন্ন দেশ শ্রীলঙ্কার প্রতি তাদের সমবেদনা জানায়| বর্বরোচিত এই কাজকে ধিক্কার জানান বিদায়ী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সহ মার্কিনি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প| পুলিশের জনসংযোগ আধিকারিক রুয়ান গুনাশেখারা একটি সাংবাদিক সম্মেলনে আহতদের মধ্যে থেকে অনেকেরই অবস্থা খুবই সংকটজনক বলে জানান| ফলে সেক্ষেত্রে বাড়তে পারে মৃতের সংখ্যাও| শ্রীলঙ্কার ইতিহাসে হওয়া সবচেয়ে ভয়াবহ এই বিস্ফোরণে জড়িত থাকার সন্দেহে এখনও অবধি ২৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানান তিনি| বিস্ফোরণ স্থলের ধ্বংসস্তূপের তলায় আরও কিছু মৃতদেহ থাকতে পারে বলে আশঙ্কা শ্রীলঙ্কা পুলিশের| সেদিন বিস্ফোরণে জড়িতদের যে ভ্যানটিতে নিয়ে আসা হয়েছিল বলে অনুমান,পুলিশ সেই ভ্যানের চালক ও তার ড্রাইভারকে গ্রেফতার করেছে| জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি অভিযুক্ত ব্যাক্তিদের বাড়িতেও তল্লাশি চালায় পুলিশ| পাশাপাশি তল্লাশি চালানো হয় অভিযুক্তরা যে বাড়িগুলিতে আশ্রয় নিয়েছিল সেখানেও| যদিও এখনও অবধি এত বড় বিস্ফোরণের দায় কোন জঙ্গী সংগঠন নেয়নি| তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, অভিযুক্তরা দক্ষিণ কলম্বোর পান্ডুরার কয়েকটি বাড়িতে প্রায় একমাস ধরে বসবাস করছিল| বিস্ফোরণের ব্লুপ্রিন্ট তৈরি হয় সেখানেই| ইসলামীয় কোন জঙ্গী সংগঠনের এর পিছনে হাত থাকতে পারে বলে মনে করছে শ্রীলঙ্কা পুলিশ| কারণ যে ভ্যান চালককে তাঁরা গ্রেফতার করেছে সে মুসলিম বলে জানিয়েছে শ্রীলঙ্কার পুলিশের মুখপাত্র গুনাশেখারা| মাত্র ৬% শতাংশ ক্যাথোলিক সম্বলিত এই দ্বীপ-দেশে বিভেদ তৈরি করাই কী ছিল এই বিস্ফোরণের মূল উদ্দেশ্য, উত্তর খুঁজছে গোটা বিশ্ব|

ছবি সৌজন্য: ডেইলি মিরর

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here