জেলবন্দী ফালুন গং-এর সমর্থকদের দেহ থেকে অঙ্গ কেটে নেওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত চিন !

0

Last Updated on

চিনের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের গুরুতর অভিযোগ আনল আন্তর্জাতিক ট্রাইবুনাল | তাদেরে দেশে বছর ২০আগে নিষিদ্ধ হওয়া ধর্মীয় সংগঠন ফালুন গং-এর জেল বন্দীদের অঙ্গ কেটে নিয়ে তা প্রতিস্থাপনের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে কমপক্ষে ২০বছর ধরেই | চূড়ান্ত রিপোর্টে ট্রাইবুনালের বিচারকেরা সেই পর্যবেক্ষণের কথাই বলছেন | চিনে অঙ্গ প্রতিস্থাপনে ব্যবহৃত অঙ্গের উৎস খুঁজতে গিয়ে এই অভিযোগ তুলেছিল একদল গবেষক | বন্দী ও মুক্ত ফালুন গং-এর সমর্থকেরা তাদেরকে এই সম্ভাবনার কথা বললেও বেজিং এই অভিযোগকে অসত্য প্রচার বলে দাবি করে | এরপরই আন্তর্জাতিক নিরপেক্ষ একটি ট্রাইবুনাল গঠন করে এর সত্যতা যাচাইয়ে পথে নামে | সেই তদন্তের যে রিপোর্ট সামনে আসে ১৭ই জুন তা চিনের বিপক্ষেই গিয়েছে | সেখানে বিচারপতিরা জানিয়েছেন যে চিনে জোরপূর্বক ওই ধর্মীয় সংগঠনের সমর্থকদের পাশাপাশি জেলে বন্দী সংখ্যালঘু ইউয়িঘার মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের সঙ্গেও একই অপরাধ সংঘটিত হওয়ার যথেষ্ট প্রমাণ তাঁরা দতন্তে নেমে পেয়েছেন | যদিও প্রত্যক্ষভাবে চিনকে এই জন্য আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলি কাঠ গোড়ায় তুলতে পারছেন না কারণ দেখা গিয়েছে জেল থেকে ছাড়া পাওয়া ফালুন গং-এর অনেক সমর্থকই অঙ্গ প্রতিস্থাপনেরপ্রয়োজনীয় ‘কাঁচামাল’ এর এই তত্ত্বকে মানতে রাজি হন নি | সেক্ষেত্রে গবেষকেরা মনে করছেন যে অর্থে্র বিনিময়ে তাদের মুখ বন্ধ করেছে চিনা সরকার | যেটাও দেশবিরোধী কাজ বলে মন্তব্য ট্রাইবুনালের | অঙ্গ স্বেচ্ছায় কেউ দিতে চাইলে এবং সেখানে কোন আর্থিক লেনদেন না থাকলে তবেই তা কাউকে দেওয়া যেতে পারে | এই নিয়মের লঙ্ঘন হয়েছে সেক্ষেত্রে বলে মনে করা হচ্ছে | যদিও বিগত ২০বছর ধরে ওঠা এই গুরুতর অভিযোগকে বরবরই খারিজ করেছে বেজিং | ট্রাইবুনালের চূড়ান্ত রিপোর্ট পেশের আগেও তাই প্রকাশ্য বিবৃতি দিয়ে এই সব গুজবে কান না দেওয়ার আবেদন করেন বিচারপতিদের | কিন্তু শেষ রক্ষা হল না তাতেও |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here