সামরিক কৌশলগত ও কূটনৈতিকভাবে চক্রব্যূহে চীন, ভারতের ফাঁসে ড্রাগনের দমবন্ধ

0
China's suffocation in India's trap

Last Updated on

পূর্ব লাদাখ সহ পুরো প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর (এলএসি) চীন যেখানে যেখানে সেনাবাহিনী পোস্টিং করেছে ঠিক তার মিরর ইমেজ অবস্থানে সেনা পোস্টিং করা হয়েছে ভারতের পক্ষ থেকে। এছাড়া বাণিজ্য স্তরে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া এবং কূটনৈতিক পর্যায়ে হংকংয়ের পরিস্থিতি নিয়ে এতদিন অবধি নীরব থাকা ভারতের মন্তব্য নিয়ে আন্তর্জাতিক আঙিনায় বিপাকে চীন। চীনের হাবভাব ক্রমশ নরম হওয়ার দিকে। সীমান্তে চলমান উত্তেজনা তৃতীয় মাসে প্রবেশকালে ভারত বিরোধী নেপালী দাবার ঘুঁটি কেপি শর্মা ওলির সিংহাসনও সুরক্ষিত নয় আর। নেপালকে ব্যবহারের চীনা পরিকল্পনা যে বিষ বাঁও জলে হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে চীন। এ ছাড়া চীন ভুটানকে নিজেরদের দিকে টানার ব্যর্থ প্রচেষ্টা ও পাকিস্তানের শয়তানি চালের যোগ্য প্রত্যুত্তর দেওয়ায় সম্পূর্ণ বিভ্রান্ত চীন ।

আরো পড়ুন :শুধু ভারতই নয়, ১৮ টি দেশের সঙ্গে রয়েছে চীনের সীমানা সংঘাত, চীনের দাদাগিরির শিকার এই ১৮টি দেশই

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (পিএমও), জাতীয় সুরক্ষা উপদেষ্টা (এনএসএ), বিদেশ ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রক পুরো পরিস্থিতি ঘনিষ্ঠভাবে পর্যালোচনা করছেন। তাঁরা মনে করছেন রাষ্ট্রসঙ্ঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে (ইউএনএইচআরসি) ভারতের হংকংয়ের পুরো পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে এই মন্তব্যে স্তম্ভিত চীন। এখন চীন আশঙ্কা করছে যে ভারতের পক্ষে প্রথম থেকেই থাকা আমেরিকা, ফ্রান্স এবং রাশিয়ার মতো দেশ হংকং ইস্যুতে ইতোমধ্যে আরও সোচ্চার হবে। এটি যেকোনও পরিস্থিতিতে চীনের পক্ষে সুবিধাজনক হবে না। উচ্চ পর্যায়ের সরকারী সূত্র জানিয়েছে যে ভারত সামরিক-কৌশলগত ও কূটনৈতিক পর্যায়ে সৌহার্দ্যপূর্ণ ফলাফলের জন্য চলমান কূটনৈতিক আলোচনায় তার উদ্দেশ্য পরিষ্কার করেছে ।

সূত্রমতে, ভারত একটি তীব্র বার্তা দিয়েছে যে, বন্ধুত্বের স্তরটি বাদ দিয়ে চীনের দাদাগিরি ফলানো মনোভাব কোনও মূল্যেই গ্রহণযোগ্য নয়। ভারত এর জন্য যতদূর যাওয়া যায় যাবে। সূত্র মোতাবেক কমান্ডার-পর্যায়ের আলোচনার সময়, চীন কথাবার্তা চালিয়ে যাওয়ার কথা বলে বিষয়টি লম্বা করছিলো, তবে সুর ক্রমশ নরমের দিকে। অন্যদিকে, চীন আনুষ্ঠানিক কূটনৈতিক ফোরামেও সম্মানজনকভাবে চীনকে বহির্গমনের রাস্তা দেখানো হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ভারতের কূটনীতিকরাও চীনকে এই দিশা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ।

আরো পড়ুন :বিশ্বে করোনা সংক্রমণ যত বাড়ছে, চীনের উপর আমার রাগও তত বাড়ছে,বললেন ট্রাম্প

সূত্রমতে, পাকিস্তানকেও কূটনৈতিক কৌশলে একটি বার্তা দেওয়া হয়েছে যে পাকিস্তান যদি ভারত ও চীনের মাঝে ঢোকে তবে এর পরিণতি হবে মারাত্মক। যেখানে চীনের সাহায্য যথেষ্ট প্রমাণিত হবে না। সূত্রমতে, পাকিস্তান গিলগিট-বালটিস্তান এবং পাকিস্তান-অধিকৃত কাশ্মীরের (পিওকে) সীমান্তবর্তী নিয়ন্ত্রণ রেখায় (এলওসি) সেনা পোস্টিং আক্রমণের জন্য নয়, বরং নিজেদের পিঠ বাঁচাতে। তাদের মারাত্মক আশঙ্কা রয়েছে যে স্থল ও আকাশপথে লড়াইয়ে পুরোপুরি সক্ষম ভারতীয় সেনাবাহিনী পি.ও.কে তে কোনও ফ্রন্ট না খুলে বসে। সেনাবাহিনীর এক উচ্চ আধিকারিকের মতে, পাকিস্তান জানে যে কোল্ড স্টার্ট সিদ্ধান্ত মোতাবেক পাকিস্তানের ফ্রন্টে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ভারতের কোনও বড় প্রস্তুতির দরকার নেই। চীনকে চতুর্দিকে ঘিরে দিয়ে সর্বস্তরে ভারত তার উদ্দেশ্য অনেকাংশে পরিষ্কার করে দিয়েছে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here