ভারতের পর এবার খোদ রাশিয়ার জমিও দাবী করে বসলো চীন, ভ্লাডিভস্তক তাদের, দাবী বেজিংয়ের

0
China claimed Vladivostok city in Russia After India

Last Updated on

ভারতের সঙ্গে লাদাখে সীমান্ত বিরোধিতার মধ্যেই রাশিয়ার শহর ভ্লাদিভোস্টককে দাবি করলো চীন। চীনের সরকার নিয়ন্ত্রিত নিউজ চ্যানেল সিজিটিএন-এর সম্পাদক শেন সিওয়াই দাবি করেছেন যে রাশিয়ার ভ্লাদিভোস্টক শহরটি ১৮৪০ সালের আগে চীনের অন্তর্ভুক্ত ছিল। শুধু তাই নয়, তিনি আরও বলেছিলেন যে শহরটি, যা পূর্বে হাসেনওয়াই নামে পরিচিত, একতরফা চুক্তির আওতায় চীন থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিল রাশিয়া। যদিও চীন ও রাশিয়ার মধ্যকার সামরিক সম্পর্ককে ভাল বলে বিষয়টি পরবর্তীকালে উত্থাপন করেনি বেজিং ।

আরো পড়ুন :বিশ্বে করোনা সংক্রমণ যত বাড়ছে, চীনের উপর আমার রাগও তত বাড়ছে,বললেন ট্রাম্প

তবে এখন ড্রাগনের মনোভাব একেবারে রুক্ষ হতে শুরু করেছে। বিশেষত যখন ভারত ও রাশিয়ার মধ্যে সামরিক সম্পর্ক গভীরতর হচ্ছে। চীনের সকল মিডিয়া সংগঠন সকলকেই নিয়ন্ত্রন করে কমিউনিস্ট পার্টি নিয়ন্ত্রিত সরকার। এতে বসে থাকা লোকেরা চাইনিজ কমিউনিস্ট পার্টির নির্দেশে যেকোন কিছু লিখতে এবং বলতে পারে ।

সূত্রের খবর, চীনা মিডিয়াতে যা কিছু লেখা হয় তা সেখানকার সরকারের চিন্তাভাবনাকেই সবসময় প্রতিবিম্বিত করে। এমন পরিস্থিতিতে শেন শেওয়াইয়ের টুইট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। রাশিয়ার সঙ্গে চীনের কূটনৈতিক সম্পর্কও সাম্প্রতিক সময়ে বেড়েছে ।

রাশিয়া কয়েক দিন আগে চীনা গোয়েন্দা সংস্থাকে সাবমেরিনের সঙ্গে সম্পর্কিত শীর্ষ গোপন ফাইল চুরির অভিযোগে অভিযুক্ত করেছিল। রাশিয়া চীনের একজন নাগরিককেও গ্রেপ্তার করে তথ্য চুরির অপরাধে, যার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ রয়েছে ।

অভিযুক্ত ঐ চীনা বংশোদ্ভূত রাশিয়ান সরকারে একটি বড় পদে ছিলেন, যিনি এই ফাইলটি চীনকে অর্পণ করেছিলেন বলে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে। প্রশান্ত মহাসাগরে মোতায়েন করা এই নৌবহরের বহরের মূল ঘাঁটি হ’ল রাশিয়ার হুইডিভস্টক শহর ।

আরো পড়ুন :ভারতকে চাপে ফেলতে পাকিস্তানেরও লাদাখে বাড়তি সেনা মোতায়েন,পাক জঙ্গী সংগঠনের সঙ্গে বৈঠকে চিনা সেনা, দাবি গোয়েন্দাদের

রাশিয়ার উত্তর-পূর্বে অবস্থিত, এই শহরটি প্রিমর্স্কি ক্রাই রাজ্যের রাজধানী। শহরটি চীন এবং উত্তর কোরিয়ার সীমান্তের নিকটে অবস্থিত। বাণিজ্যিক ও ঐতিহাসিকভাবে ভ্লাদিভোস্টক রাশিয়ার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলির মধ্যে অন্যতম। রাশিয়া থেকে বেশিরভাগ বাণিজ্য এই বন্দরের মধ্য দিয়ে হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপান এবং রাশিয়ার সেনাবাহিনীর মধ্যে একটি মারাত্মক যুদ্ধ হয়েছিল এখানে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here