মৃণ্ময়ী নয়,শ্বেত পাথর এবং রুপোয় গড়া মাতৃ মূর্তি ধরা দেবে শিল্পীর সৃজনে

0

Last Updated on

মাতৃ মূর্তি নির্মাণে কড়া পাহারার বেষ্টনী । অস্ত্রধারী পুলিশ,সিসি ক্যামেরার করা নজরবন্দী নির্মাণ শালা । মৃন্ময়ী মায়ের মূর্তি গড়তে কেনই বা এতো কড়া পাহারার ঘেরাটোপ ! চমকটা এখানেই মা যে মৃন্ময়ী নন এই দুই স্থানে । শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি । পানিহাটি শহীদ কলোনির পূজা মণ্ডপের জন্য সপরিবার মাতৃ প্রতিমা নির্মাণ করা হচ্ছে একটি ১৬ টনের শ্বেত পাথর দিয়ে ।

অপরদিকে কলকাতার কামারডাঙ্গা সাধারণ দুর্গোৎসব এই বছর পদার্পণ করেছে একশ বছরে,তাই তাদের পুজোর ভাবনা ‘একশতে একশো দশ’ অর্থাৎ ১১০ কেজি রুপো দিয়ে নির্মিত হচ্ছে তাদের শতবর্ষের মাতৃপ্রতিমা । উভয় ক্ষেত্রেই শিল্পী হাবড়ার ইন্দ্রজিৎ পোদ্দার । এই অভিনব মূল্যবান মূর্তি গুলি তৈরি হচ্ছে তাঁরই হাবড়ায় শিল্পীর বাড়িতেই । শিল্পীর দাবি, কলকাতা তো বটেই গোটা রাজ্যে এই প্রথম শ্বেত পাথরের তৈরি সপরিবার মাতৃমূর্তি দর্শন করবেন দর্শনার্থীরা পানিহাটি শহীদ কলোনির পূজা মন্ডপে । রাজস্থানের জয়পুর থেকে শ্বেত পাথরের মূর্তির জন্য কাঁচামাল নিয়ে আসা হয়েছে,মূর্তির ওজন হবে কমবেশি ১৬ টন ।

আরও পড়ুন: ক্ষুদ্রতম দূর্গামূর্তি গড়ে গিনিস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের দোরগোড়ায় রায়গঞ্জের শিল্পী https://risingbengal.in/tiny-durga-story/

চলতি বছরের জুন মাস থেকে শিল্পী ইন্দ্রজিৎ পোদ্দার ও তাঁর সহকর্মীরা তৈরি করে চলেছেন সরস্বতী,লক্ষী,কার্তিক,গণেশ সহযোগে অপরূপ সুন্দর এই শ্বেতপাথরের মাতৃমূর্তি । পাশাপাশি আরও একটি মণ্ডপ, কলকাতার কামারডাঙ্গা সাধারণ দুর্গোৎসব সমিতির ১১০ কেজি রুপোর মূর্তি নির্মাণের কাজও চলছে জোরকদমে । শিল্পী ইন্দ্রজিৎ পোদ্দার বলেন, শান্তি রূপিনী মৃন্ময়ী মায়ের আদলে তৈরি হবে এই রুপোর প্রতিমা সেই সঙ্গে আধুনিকতার ছোঁয়াও থাকবে তাতে । যেমন মায়ের মাথায় অবগুন্ঠন থাকলেও পরনে থাকবে ঘাগড়া । এই সম্পূর্ণ কাজটাই তৈরি হয়েছে রুপোর পাতের উপর এক অসাধারণ শিল্প নৈপুণ্যে । অসুরবিনাশিনী মা শান্তির বার্তা নিয়ে স্বয়ং দণ্ডায়মান থাকবেন অসুরের শরীরের উপর । মায়ের হাতে অস্ত্রের স্থানে থাকবে জ্বলন্ত প্রদীপ,আরেকটি হাতে প্রকাশ পাবে অভয়দান মুদ্রা । শিল্পী ইন্দ্রজিৎ পোদ্দার আরো বলেন, ১১০ কেজি রুপোর সাজে সজ্জিত অপরূপ বাংলা বাংলা মাকে দেখতে দেখতে আর মণ্ডপে ঘুরতে ঘুরতে দর্শনার্থীরা হারিয়ে যাবেন সম্প্রীতির মেলবন্ধনের এক রূপসী বাংলার বুকে । রুপোর মা যেন এখানে একাত্ব হয়ে যাবেন প্রকৃতি মায়ের সঙ্গে। এই সবকিছু সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে আলো-আঁধারির আলোকসজ্জায় পরিপূর্ণতা পাবে এই মণ্ডপসজ্জা ।

আরও পড়ুন: রায়গঞ্জের সুপ্রাচীন বন্দর আদি দুর্গাবাড়ির পুজোর ইতিবৃত্ত https://risingbengal.in/rayganj-port-durgapuja/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here