শহর কলকাতার পুজো পরিক্রমা (পর্ব-২)

0
sabarna roychowdhuri

Last Updated on

শহর কলকাতার পুজো পরিক্রমা (পর্ব-২)

শহর কলকাতার বনেদী পরিবারগুলির মধ্যে অন্যতম হল বেহালার দক্ষিণভাগের বড়িশা অঞ্চলের সাবর্ণ রায়চৌধুরী বাড়ির পুজো। এই পুজোর ইতিহাস প্রায় ৪০০ বছরের পুরোনো বলে জানা যায়। বর্তমানে রায়চৌধুরী বংশের উত্তরাধিকারীরা হালিশহর, বড়িশা, উত্তরপাড়া, নিমতা, বিরাটী, খেপুট এমনকি বাংলাদেশেরও বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকেন শোনা যায়। রায়চৌধুরী বাড়ির পূর্বপুরুষ পঞ্চানন গঙ্গোপাধ্যায় ওরফে পাঁচু শক্তিখান যিনি মুঘল বাদশা হুমায়ুনের পাঠান সৈন্যদের অশ্বারোহী বাহিনীর সেনানায়ক হিসেবে নিযুক্ত হন সেসময়। বাদশা হুমায়ুনই ‘খা উপাধি দেন তাঁকে।

আরও পড়ুন:শহর কলকাতার পুজো পরিক্রমা (পর্ব-১)

সপ্তদশ শতকের একেবারে শুরুর দিকে তিনি অধুনা হালিশহর একটি বিশাল প্রাসাদ গড়ে তোলেন। সেই প্রাসাদের সূত্রেই হাভেলীশহর থেকে ক্রমে জায়গাটির নাম হয় হালিশহর। সেখান থেকেই ক্রমশ পঞ্চাননবাবুর উত্তরপুরুষরা বড়িশা, বিরাটি, উত্তরপাড়া প্রভৃতি জায়গাতে ছড়িয়ে পড়েন। পরবর্তীকালে তাঁরই উত্তরসূরি লক্ষীকান্ত গঙ্গোপাধ্যায় রাজা মান সিংয়ের কাছে থেকে এক বিরাট অংশের জায়গীর লাভ করেন এবং তাঁর কাছে থেকে ‘রায়’ এবং ‘চৌধুরী’ উপাধীদুটিও পান। গঙ্গোপাধ্যায় পরিবার তার পর থেকেই হয়ে যায় রায়চৌধুরী পরিবার।

আরও পড়ুন: রাজ্যপাট না থাকলেও সাত্ত্বিক ভাবেই হয় উত্তর দিনাজপুরের রায়চৌধুরীদের পুজো

প্রচলিত ইতিহাস অনুযায়ী কলকাতা শহর তৈরি হয় সূতানুটি, গোবিন্দপুর এবং কলিকাতা নামক তিনটি গ্রাম নিয়ে। এই তিনটি গ্রাম সপ্তদশ শতকে সাবর্ণ রায়চৌধুরীদেরই জায়গীরের অংশ ছিল বলে জানা যায়। ১৭১৭ সালে ব্রিটিশ ইষ্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানি মুঘল সম্রাট ফারুকশিয়রের কাছে থেকে ঐ অঞ্চলে ব্যাবসা বাণিজ্যের অনুমোদন পায় রায়চৌধুরীদের অনিচ্ছা সত্ত্বেও। কিন্তু এলাকার স্থানীয় জমিদার বা ব্যাবসায়ীরা তাতে রাজি না হলে মুঘল দরবারে ব্রিটিশরা ঐ যুগেই ঘুঁষ দিয়ে ঘুরপথে তা লাভ করে বলে জানা যায় এবং কলিকাতা অঞ্চল তাদের হাত থেকে ব্রিটিশদের হাতে চলে যায়।

আরও পড়ুন:মাটি ঘাঁটতে ঘাঁটতেই ‘প্রতিমা’ হয়ে উঠলেন মৃৎশিল্পী

বর্তমান ডালহৌসি অঞ্চল ছিল সেই কলিকাতার অন্তর্ভুক্ত। ঐ সময়তেই রায়চৌধুরী পরিবার বর্তমান বেহালার দক্ষিণভাগে বড়িশা অঞ্চলে পাকাপাকিভাবে চলে যায় এবং সেই সূত্র ধরেই লক্ষিকান্ত গঙ্গোপাধ্যায়ের হাত ধরে বড়িশার আটচালা বাড়িতে দুর্গাপুজোর পত্তন হয় যা বর্তমানে সাবর্ণ রায়চৌধুরীর দুর্গাপুজো নামে পরিচিত। উত্তর কলকাতার শোভাবাজার রাজবাড়ির পুজোকে বাদ দিলে সবচেয়ে আলোচিত বনেদী বাড়ির পুজো বলতে মানুষ যে পুজোকে চেনে তা হল এই সাবর্ণ রায়চৌধুরী বাড়ির পুজো।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here