“চক্রব্যূহের পাকচক্র” – পৃথিবীর গভীরতম অসুখ; হাওড়ার শিবাজী সংঘের পুজোমন্ডপের এবারের ভাবনা

0

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক : ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ : প্রতিবারই নতুন কিছু আঙ্গিকে নতুন কিছুর বার্তা নিয়ে নতুন কোনও ভাবনায় শারদোৎসবের আয়োজন করে থাকেন হাওড়ার ইছাপুর শিবাজী সংঘের সদস্যরা। এবছর তাঁদের ৪৬তম মাতৃ আরাধনার আয়োজনেও তার ব্যতিক্রম ঘটেনি। ইছাপুর দক্ষিণপাড়ার ইছাপুর শিবাজী সংঘ এ বছর তাঁদের পুজোর ভাবনায় প্রতিফলিত করতে চলেছেন সম্পূর্ণ অভিনব এক ভাবনা “চক্রব্যূহের পাকচক্র”, যা কিনা বতর্মান পৃথিবীর গভীরতম অসুখ। সেই অসুখের অন্যতম কুফল হল অবক্ষয়ের চোরাপথে মানবতার বিসর্জন। আজকের পৃথিবীতে বদলে গেছে ষড়রিপুর সংজ্ঞা। যন্ত্রনির্ভরতা, ধর্মান্ধতা, সন্ত্রাসবাদ, রাজনৈতিক উগ্রতা এমন কিছু নবতর রিপুর চক্রব্যূহে প্রবেশ করে পথভ্রষ্ট আজকের এই মানব সমাজ। মা ছাড়া কেই বা দেখাবে সন্তানদের সঠিক পথের দিশা! তাই এই চক্রব্যূহ থেকে মুক্তির পথ পেতেই এবার এই থিমের মাধ্যমে মাতৃ আরাধনায় ব্রতী হয়েছেন শিবাজী সংঘের সদস্যরা। সংঘের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেলো , তাঁদের এবারের থিমের মূল ভাবনার বিষয়টি হল, বর্তমান পৃথিবীর গভীরতম অসুখ এবং সেই অসুখের অন্যতম কুফলে ষড়যন্ত্রের মোহিনী মাদকতায় আচ্ছন্ন আমাদের এই বর্তমান সমাজ। সৃষ্টির আদি লগ্ন থেকে ষড়রিপুর বন্ধন যেমন মনুষ্য জাতির শুভবোধকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে, তেমনি আজকের পৃথিবী যেন আবার নতুন করে ষড়যন্ত্রের চক্রব্যূহে প্রবেশ করে পথভ্রষ্ট। যন্ত্রনির্ভরতা, ধর্মান্ধতা, সন্ত্রাসবাদ, রাজনৈতিক উগ্রতা, অবিচারের নীতিহীনতা এই ছয়টি নব্য রিপুর আগ্রাসী প্রভাবের কাছে হারিয়ে ফেলেছে আজকের মানব সমাজ তার সৃজনশীল শুভবুদ্ধির চাবিকাঠি। অতিরিক্ত যন্ত্রনির্ভরতায় বিশুদ্ধ প্রেমের আবেগ আজ পরিণত হয়েছে যান্ত্রিক বেগে। উন্মত্ত ধর্মান্ধতা আর সাম্প্রদায়িকতার আগুনে ভস্মীভূত আজ মনুষ্যত্ব। সন্ত্রাসবাদের লেলিহান শিখায় পুড়ে ছাই হয়ে যাচ্ছে কত শত মায়ের স্বপ্ন, বধুর প্রেম-ভালোবাসা,সন্ততির নির্ভরতা। রাজনীতির উগ্রতায় মানুষ আজ দিকভ্রষ্ট। যুবশক্তি বেশকিছু কুরুচিকর নাগপাশে বন্দী হয়ে অসামাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত । আর এ সকল সমস্যা থেকে সমাধানের পথ খুঁজতে গিয়ে মনন যখন বিচারকের সম্মুখে কাঠগড়ায় দন্ডায়মান তখনই দেখা যায় নীতিহীন অবিচারের নির্মম শিকার হয়ে বিচারের বাণী নীরবে নিভৃতে কাঁদে।

আরও পড়ুন – বিবর্তনের পথে দুর্গা : শস্যদেবী থেকে দুর্গতিনাশিনী

সাধক কবি রামপ্রসাদ একদা ষড়রিপুর বন্ধন থেকে মুক্তি লাভের জন্য মাকে প্রশ্ন করেছিলেন , “মা আমায় ঘুরাবি কত ? ছ’টা কলুর অনুগত।” তেমনি শিবাজী সংঘ নব্য ষররিপুর চক্রব্যূহে দিশেহারা না হয়ে মুক্তির পথ খুঁজতে ব্রতী হয়েছে মাতৃ আরাধনায়।

থিমের সঙ্গে সাযুজ্য রেখেই এবার
কুমারটুলির প্রখ্যাত শিল্পী নব পাল প্রতিমা নির্মাণ করছেন তাঁদের মন্ডপের জন্য। মন্ডপ তৈরিতে ব্যবহার করা হচ্ছে চুবড়ি, নাইলন দড়ি, টিন, পাট, রেশম সুতো সহ নানা উপকরণ। তৃতীয়ার সন্ধ্যায় পূজা মন্ডপের উদ্বোধন হবে শিবাজী সংঘের। মাঠ জুড়ে থাকছে অভিনব আলোকসজ্জা। ক্লাব সদস্যরা আরো জানান, এবছর পুজোমণ্ডপে সমাজ সচেতনতার দিকে লক্ষ্য রেখে মুলতঃ চারটি বিষয়কে তুলে ধরা হচ্ছে। এই চারটি বিষয় হলো,পরিবেশ বাঁচাও, জল বাঁচাও, প্লাস্টিক বর্জন করো এবং সেভ ড্রাইভ সেফ লাইফ ।

আরও পড়ুন – দুর্গাপুজোর সময় পরীক্ষা না রাখার দাবীতে সংখ্যালঘু হিন্দুদের মানববন্ধন বাংলাদেশে

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এঁদের পুজো প্রতিবছরই রাজ্য সরকার কত্তৃক আয়োজিত পুজো কার্নিভালে অংশ নেয় হাওড়া জেলার প্রতিনিধি হিসেবে। প্রতিবারের মতো এবছরও রাজ্য সরকারের কার্নিভালে অংশ নেবে এদের প্রতিমা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here