অভিনব মাতৃ আরাধনা যজ্ঞের ঋত্বিক নবম শ্রেণীর ঋত্বিকা

0
durgapuja 2019

Last Updated on

রাইজিং বেঙ্গল ডেস্ক ; ৩০শে সেপ্টেম্বর ২০১৯ : এ পূজায় নেই কোন মাতৃমূর্তি !
পিচবোর্ডের উপর রঙ তুলি দিয়ে নিজের হাতে আঁকা মাদূর্গার ছবি, শিল্পী শ্রীরামপুর চাতরার নবম শ্রেনীর ছাত্রী ঋত্বিকা মল্লিক।নিজের আঁকা এই মাতৃপ্রতিকৃতি নিজেই পুজো করে ঋত্বিকা। তারই হাত ধরে মল্লিক বাড়িতে উমা ও তাঁর পরিবারের আগমন। মহালয়ার দিন থেকেই শুরু হয় মল্লিক বাড়ির দুর্গাপুজো।

আরও পড়ুন:নির্ভুল উচ্চরাণ ও বিশুদ্ধ উপাচারের জন্য চতুষ্পাঠীর টোলে পাঠ নিচ্ছেন দুর্গাপুজোর পুরোহিত

ঋত্বিকার শুরু করা এই পূজো এবারে সপ্তম বর্ষে পা দিয়েছে। তৃতীয় শ্রেনীতে পড়ার সময় থেকে বাবার কাছে ছবি আঁকার হাতেখড়ি ঋত্বিকার। প্রথমে আর্ট পেপারের উপর মোম পেন্সিলে দূর্গার ছবি এঁকে পুজো শুরু করে শিশু ঋত্বিকা। এরপর সময়ের সাথে সাথে পরিনত হয়েছে তার ছবি আঁকার চিন্তাভাবনা।

আরও পড়ুন:মৃণ্ময়ী নয়,শ্বেত পাথর এবং রুপোয় গড়া মাতৃ মূর্তি ধরা দেবে শিল্পীর সৃজনে

২০১৩ সাল থেকে কাগজের পিচবোর্ডের উপর দূর্গা, সরস্বতী, লক্ষ্মী, কার্তিক, গনেশ ও তাঁদের বাহনদের ছবি এঁকে রঙ করে, তাতে শাড়ি পড়িয়ে দুই ফুটের আস্ত দূর্গা তৈরি করা শুরু করে ঋত্বিকা। সমস্ত নিয়ম আচার নিষ্ঠা সহকারে পালন করে নিজেই মায়ের পুজো করে ঋত্বিকা। তার তৈরি দূর্গা প্রতিমা দেখতে পুজোর দিনগুলিতে দর্শনার্থীদের ভীড় জমে শ্রীরামপুরের মল্লিক বাড়িতে। দূর্গাপুজোর পর মালক্ষ্মী ও মাকালীর প্রতিমাও তৈরি করে ঋত্বিকা এবং এই দুটি পুজোও সে নিজেই করে।বাবা-মা সহ পাড়া প্রতিবেশীরা সকলেই তার এই প্রতিমা তৈরীতে উৎসাহ জুগিয়ে এসেছে সর্বদা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here