উপপীঠ থেকে সিদ্ধপীঠ তারাপীঠ, দেবী তারা থেকে দেবী কৌশিকী এবং কৌশিকী অমাবস্যা

0

Last Updated on

উত্তম মণ্ডল

বীরভূমের রামপুরহাট মহকুমার অন্তর্গত তারাক্ষেত্র তারাপীঠ কৌশিকী অমাবস্যা উপলক্ষে এই মুহূর্তে জমজমাট। অমাবস্যার এই বিশেষ তিথি উপলক্ষ্যে আয়োজিত হয় তারা মায়ের বিশেষ নিশি পূজো । মহাভোগ ও মহা রাজবেশে মায়ের এই পূজো অনুষ্ঠিত হয়।
এই অমাবস্যার আরেক নাম তারা রাত্রি। তন্ত্র সাধনার জন্য আজকের এই অমাবস্যাকে খুবই গুরুত্বপুর্ণ বলে মনে করা হয়। তন্ত্র শাস্ত্রের ব্যাখ্যা অনুযায়ী, আজকের দিনে তন্ত্রসাধনা করলে আশাতীত ফল মেলে, সাধক কুন্ডলিনী চক্রকে জয় করে। শোনা যায়, কৌশিকী অমাবস্যার দিনেই তারাপীঠ মহাশ্মশানের শ্বেতশিমূল বৃক্ষের তলায় মা তারার আরাধনায় তারাপীঠ ভৈরব বামাক্ষ্যাপা সিদ্ধি লাভ করেন। তাই এই পীঠকে ‘সিদ্ধপীঠ’ বলা হয়। তবে আসলে তারাপীঠ হলো উপ-পীঠ, সতীপীঠ নয়। আর তারাপীঠের “মা তারা” হলেন বৌদ্ধ দেবী।
কথিত আছে, শুম্ভ-নিশুম্ভ এই দুই অসুরের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছিলেন স্বর্গের দেবতারা। শেষে দেবতারা মহামায়ার তপস্যা শুরু করেন। সেই তপস্যায় সন্তুষ্ট হয়ে দেবী কালী শীতল মানস সরোবরের জলে স্নান করে নিজের দেহের সব কালো কৌশিকা পরিত্যাগ করলেন ও পূর্ণিমার চাঁদের মতো গাত্র বর্ণ ধারণ করলেন। হয়ে উঠলেন অপূর্ব সুন্দর কৃষ্ণবর্ণা দেবী কৌশিকী। কৌশিকী রূপে মহামায়া এই বিশেষ তিথিতেই ‘শুম্ভ’ ও ‘নিশুম্ভ’ নামের দুই অসুরকে বধ করেন। তাই আজকের দিনের এই বিশেষ তিথিতে মা তারাকে তারাপীঠে “কৌশিকী” রূপে পূজা করা হয়।
কৌশিকী অমাবস্যা উপলক্ষে এখন তারাপীঠে উপচে পড়া ভিড়। সারা দেশের তান্ত্রিকরা তারাপীঠের দ্বারকা নদীর তীরে আসন পেতে বসেছেন হোম-যজ্ঞসহ তন্ত্রসাধনায়। জোতিষীরা বসেছেন তাদের শিষ্য-ভক্তদের ফাঁড়া-রিষ্টিযোগ কাটাতে। প্রসাশনের তরফেও নজরদারি চলছে। এবার প্রথম কাঠ জ্বেলে নয়, সৌর শক্তির সাহায্যে তারা মায়ের ভোগ রান্না হচ্ছে। সাদা পোষাকসহ উর্দিধারি হাজার দু’য়েক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে দু’দিনের জন্য। দ্বারকা নদীর ঘাটগুলিতেও চলছে নজরদারি। আর অবশ্যই আজ বৃহস্পতিবার “ড্রাই ডে” হলেও কৌশিকী অমাবস্যা উপলক্ষে খোলা থাকছে এলাকার মদ দোকানগুলি। কৌশিকী অমাবস্যায় প্রায় লক্ষাধিক ভক্ত আসেন তারাপীঠে। তাই মদ বেচে রেকর্ড পরিমাণ রাজস্ব বাড়াতে চেয়ে আবগারি দপ্তর এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে খবর। সব মিলে তারাক্ষেত্র তারাপীঠে এখন উৎসব জমজমাট।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here