ক‍্যান্সার আটকাবে কুড়কুড়ে ছাতু, দরকার শাল জঙ্গল

1

Last Updated on

উত্তম মণ্ডল

১২২৯ সালে নোবেলজয়ী স্কটিশ বিজ্ঞানী আলেকজান্ডার ফ্লেমিং একটি দুর্ঘটনা থেকে পেনিসিলিন ছত্রাকটি আবিষ্কার করেন। ১২২৯ থেকে আজ ২০১৯। এতগুলো বছর পর আবার এক উপকারী ছত্রাক বিজ্ঞানীদের গবেষণায় উঠে এসেছে। এর প্রচলিত নাম : কুড়কুড়ে ছাতু।
বিজ্ঞানসম্মত নাম : অ্যাস্ট্রিয়াস হাইগ্রোমেটিকাস।
বাঁকুড়া, বীরভূম, পুরুলিয়া, মেদিনীপুরের ল‍্যাটেরাইট মাটিতে শাল গাছের তলায় জন্মানো এই ছত্রাকটিই এখন খবরে এসেছে। এতদিন এটা ছিল হেলাফেলার বস্তু। শুধুমাত্র আদিবাসী আর জঙ্গল ঘেঁষা গ্রামের কিছু মানুষ। শাল গাছের তলায় বর্ষাকালে মাটির অল্প নিচে জন্মায় এই ছাতু। সাদা মার্বেল আকারে একসঙ্গে এক ঝাঁক থাকে। ছোটবেলায় আমি নিজেও পাড়ার বন্ধুদের সঙ্গে জঙ্গল থেকে সংগ্রহ করে আনতাম। ভাজা হতো, খোসা ছাড়িয়ে সুস্বাদু ঝোল হতো। দেশে এখন শাল জঙ্গল প্রায় উধাও, তার জায়গা দখল করে নিয়েছে ইউক‍্যালিপটাস-সোনাঝুরি। তাই উপকারী কুড়কুড়ে ছাতুও উধাও হয়ে গেছে। সম্প্রতি কলকাতা বালিগঞ্জ সায়েন্স কলেজের বিজ্ঞানীরা এই কুড়কুড়ে ছাতুটিকে নিয়ে গবেষণা করে চমকে দেবার মতো তথ্য দিয়েছেন। এছাড়াও কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিদ‍্যা বিষয়ের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক কৃষ্ণেন্দু আচার্য, ওই বিভাগের গবেষক অধিরাজ দাশগুপ্ত, সুদেষ্ণা নন্দীরা গবেষণা করেছেন এই ছত্রাকটি নিয়ে।
গবেষণা থেকে জানা যাচ্ছে, এটিতে ফ‍্যাট থাকে কম, ফাইবার থাকে বেশি। পুষ্টিগুণে ভরপুর এই ছত্রাকটিতে রয়েছে অ্যাস্ট্রাকুরকুরোন ও অ্যাস্ট্রাকুরকুরোল নামে দুটি জৈব যৌগ। মানুষের লিভার, হৃৎপিণ্ডের প্রদাহ কমায় এই ছত্রাক। শুধু তাই নয়, লিভার ও ফুসফুসের ক‍্যান্সার কোষ মোকাবিলায় এই ছত্রাক বিশেষভাবে কার্যকরী।
তাই আগামীদিনে মানুষের প্রাণঘাতী রোগব‍্যাধির জন্য দরকার ব‍্যাপক শাল গাছ রোপণ। ইউক‍্যালিপটাস-সোনাঝুরির বদলে এই শাল গাছ আগামীদিনে জীবনদায়ী ছত্রাকের ভূমিকা আবার নিক নতুন করে। তবেই আমরা প্রকৃতি থেকেই পাবো লম্বা আয়ু আর সুস্থ জীবন। পৃথিবীতে প্রায় চৌদ্দ হাজার বিভিন্ন প্রজাতির ছত্রাক রয়েছে। এর মধ্যে বেশ কিছু মাশরুম ছত্রাক সৌখিন খাদ্যতালিকায় ঠাঁই পেয়েছে। কুড়কুড়ে ছত্রাক এর মধ্যে অন্যতম এবং বর্তমান গবেষণায় এর ঔষধিগুণকে কাজে লাগাতে পারলে চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন করে বিপ্লব আসবে।

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here