উত্তরকাশীর ১৬টি গ্রামে ছয়মাসের মধ্যে জন্মায়নি একটিও কন্যা সন্তান, অবাক মুখ্যমন্ত্রীর তদন্তের নির্দেশ

0

Last Updated on

অবৈধভাবে লিঙ্গ নির্ধারণ করে মেরে ফেলা হচ্ছে কন্যা ভ্রুণ | এমনই মারাত্মক প্রবণতার কথা মাথায় ঘুরছে উত্তরা খন্ডের উত্তরকাশীর স্বাস্থ্য আধিকারিক থেকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর | ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্তের নির্দেশ দিলেন উত্তরাখন্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত | সরকারি স্বাস্থ্য পরিসংখ্যান বলছে উত্তরাখন্ডের উত্তরকাশী জেলার ১৬টি গ্রামে সরকারের খাতায় জন্ম লিপিবদ্ধের ক্ষেত্রে একটিও কন্যা সন্তানের নাম চোখে পড়েনি আধিকারিকদের | তখনই বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন| ওই গ্রামগুলিতে কোন স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান আইনত দন্ডনীয় অপরাধ লিঙ্গ নির্ধারণ ও অবৈধভাবে গর্ভপাতের সঙ্গে যুক্ত কিনা তা নিয়ে খোঁজ শুরু করেন | শিশু ও নারী কল্যাণ সংস্থার মন্ত্রী রেখা আর্য ঘটনার গুরুত্ব বুঝে চিন্তা প্রকাশ করেন |

পরিসংখ্যান বলছে উত্তরকাশীতে গত ছয়মাসে ৬৫টি বাচ্চা জন্ম নিয়েছে যারা প্রত্যেকেই শিশু পুত্র | ভাটওয়ারি,দুন্ডা সহ একাধিক গ্রামে কোন কন্যা সন্তানই জন্মায়নি গত ছয়মাসে | ওই ১৬টি ছাড়াও আর বাকী গ্রামগুলিতেও কন্যা সন্তান জন্মানোর অনুপাত অত্যন্ত কম বলে জানান স্বাস্থ্য আধিকারিকেরা | এই ৮২টি গ্রামকে বিশেষ নজর দিতে লাল অঞ্চল বলে চিহ্ণিত করা হয়েছে |

কেন্দ্রের বেটি বাঁচাও,বেটি পড়াও প্রকল্পের উল্টোপথে হাঁটার এই প্রবণতা অত্যন্ত ভয়হ্কর বলে মন্তব্য করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী | ২০১১সালের জনগণমী অনুযায়ী গোটা রাজ্যে পুরুষ ও মহিলার সংখ্যার খুব বেশি ফারাক না থাকলেও আগের থেকে জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার দুটি ক্ষেত্রেই কমেছে বলে দখা গিয়েছে | সাক্ষরতার নিরীখেও পুরুষদের থেকে সেভাবে পিছিয়ে নেই উত্তরাখন্ডের মহিলারা | তবে কেন কন্যা সন্তানের প্রতি এত অনীহা ওই গ্রামের বাসিন্দাদের তা খুঁজতেই ইতিমধ্যেই তদন্তে প্রশাসন | তদন্তের রিপোর্ট সাতদিনের মধ্যে দাখিল করা ছাড়াও গর্ভবতী মহিলাদের উপর বিশেষ নজরদারি করতে নির্দেশ জেলা শাসকের |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here