নিখোঁজ এসওজি জওয়ান জৈশ-ই-মহম্মদে যোগ দিয়ে খতম যৌথবাহিনীর গুলিতে

0

Last Updated on

শ্রীনগর : আশঙ্কা ছিল আগেই | তা সত্যি বলে প্রমাণিত হল বৃহস্পতিবার | পুলওয়ামার লাসিপোরায় ২৪ঘন্টা ধরে যে গুলির লড়াই চলছিল তাতে খতম হয়েছে স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের দুই জওয়ান | এরা দুজন কর্মরত অবস্থায় নিঁখোজ হয়েছিল ঠিক দুুদিন আগে | সঙ্গে থাকা সরকারি রাইফেল সহ তারা উধাও হয়েছিল পুলওয়ামা ডিপিএল থেকে | তার ঠিক দুদিনের মাথায় জইশ-ই মহম্মদের পোশাকে যৌথবাহিনীর সঙ্গে লড়াইয়ে নিকেশ হল এই দুই স্থানীয় যুবক| সঙ্গে নিকেশ আরও দুই জঙ্গী | পুলওয়ামার লাসিপোরায় বৃহস্পতিবারই কিছু জঙ্গী লুকিয়ে থাকার খবরে তল্লাশি চালু হয় | তাতে প্রথমে পাথর বৃষ্টি করে বাধা দিতে থাকে স্থানীয় যুবকেরা | সেই বাধা সরিয়ে রাথ ভোর গুলির লড়াই চলতে থাকে | আর তাতেই খতম হয় সাবির আহমেদ ও সলমন আহমেদ নামে দুই এসওজি কমান্ডার |

শুধু রাইফেল নয় সূত্রের খবর কর্মরত অবস্থা থেকে তারা পালিয়ে যাওয়ার সময় সঙ্গে যথেষ্ট পরিমাণ গোলা-বারুদও নিয়ে যায় | সাবির ও সলমন এরা একজন পুলওয়ামা ও অন্যজন সোপিয়ানের বাসিন্দা | বাকি দুই জঙ্গীর মধ্যে ইমরান আহমেদ পুলওয়ামার আরিহাল এবং আদিল আহমেদ পাঞ্জিরানের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে | এরা প্রত্যেকেই জঈশ-ই- মহম্মদের সক্রিয় সদস্য বলে জানা গিয়েছে | স্থানীয় যুবকদের প্রভাবিত করা ছাড়াও হামলার ছক কষা সবেতেই এদের ভূমিকা ছিল গুরুত্বপূর্ণ | লোকসভা ভোট চলাকালীন পুলওয়ামাতে ৪০জন জওয়ানের মৃত্যু নিয়ে রাজনৈতিকভাবে সরব হয়েছিলেন বিরোধীরা | তাঁর মধ্যে ছিলেন এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীও | প্রশ্ন তুলেছিলেন কেন নিরাপত্তায় এত খামতি? সাবির-সলমনের মত মেকি ফৌজিরা বোধ হয় সেই জবাবটাই দিলেন বিরোধীদের | সর্ষের মধ্যেই ভূত থাকলে, সেই বিশ্বাসঘাতকতার মাসুল গুনতে হয় সবাইকে | সেকথাই চোখে আঙুল দিয়ে আর একবার দেখালো পালিয়ে যাওয়া এই দুই এসওজি জওয়ান |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here