সন্ত্রাসের টাকা জোগাতে জইশ-এ-মহম্মদের ড্রাগ মডিউল,হাওলার মাধ্যমে টাকা পৌঁছতে সীমান্তের ওপার

0
Jaish-e-Mohammed's drug module to raise money for terrorism

Last Updated on

পাকিস্তানের মদতে ঘটে চলা সন্ত্রাস নিয়ে ভারতের কঠোর অবস্থানের পরে পাকিস্তান ছক বদলেছে সন্ত্রাস বিছানোর কায়দায় | সীমান্তে কড়া নজরদারি | তাই স্থানীয় মডিউলদের উজ্জীবিত করার চেষ্টা লাগাতার করে চলেছে পাকিস্তানস্থিত জঙ্গী গোষ্ঠীর শীর্ষ নেতারা | ছোট ছোট সেসব মডিউলের জন্য অর্থের জোগান আসছে পাকিস্তান থেকেই | তেমনই অর্থ লেনদেন ও ড্রাগ মডিউলের সক্রিয় চক্রির হদিশ মিলল বাডগামে | পাকিস্তানের টাকা হাওলার মাধ্যমে এদেশে নিয়ে আসা ও তাকে সন্ত্রাসের কাজে লাগানোর জন্য ছয় জঈশ এ মহম্মদ জঙ্গীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ | এই চক্রের থেকে উদ্ধার হয়েছে ১ কেজি হেরোইন যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় দেড় লক্ষ টাকা |

আরো পড়ুন :রাম মন্দির নিয়ে মন্তব্য করায় পাকিস্তানকে কড়া জবাব ভারতের

তারা এই জঙ্গী সংগঠনের হয়ে এগুলি বিক্রির মাধ্যমে অস্ত্র শস্ত্রর কিনে স্থানীয় জঙ্গীদের হাতে তুলে দিত বলে জানান এক পুলিশ আধিকারিক | ধৃত ছয় জনের মধ্যে এক নাবালক আছে বলেও জানান ওই আধিকারিক | মধ্য কাশ্মীরের বাডগাম জেলায় ৫০আরআর সেনা ও পুলিশের যৌথ বাহিনীর তল্লাশির সময় এরা গ্রেফতার হয় বলে জানা গিয়েছে | গোয়েন্দাদের তথ্য অনুযায়ী,পাকিস্তান পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সন্ত্রাসের যে জাল বিছানোর পদ্ধতি ও মডিউল চালানোর প্রক্রিয়ার পরিবর্তন করছে |নোটবন্দীর পর থেকেই সন্ত্রাসে টাকার জোগান কমে গিয়েছিল |

আরো পড়ুন :২রা জুন শীর্ষ আদালতে ইন্ডিয়া থেকে ‘ভারত’ বা ‘হিন্দুস্থান’ হওয়ার শুনানির দিন ধার্য

বিশেষ করে সীমান্ত পেরিয়ে যে টাকা অবাধে এখানে জঙ্গী কার্যকলাপে মদত দিত তা একেবারে তলানিতে ঠেকেছিল | এমনকি যারা ব্যাবসায়িক সূত্রে পাকিস্তানে যাওয়া আসা করতো তাদেরকেও চিহ্নিত করে গ্রেফতার করা হয় বিভিন্ন সময়ে | ফলে ভাটা পড়ে সেই জোগানে | তার বিকল্প পথ হিসেবে ড্রাগস বেচে টাকা তোলার চক্র গড়ে তোলে বলেই ধারণা ভারতীয় গোয়েন্দাদের | তাই এই গ্রেফতার নতুন এক দিকের সন্ধান দেবে বলে আশাবাদী তারা |

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here