গ্রাহাম সাহেব ও তাঁর পুত্রদ্বয়কে পুড়িয়ে মারেননি প্রতাপ সারেঙ্গি

0

Last Updated on

প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় মন্ত্রীসভায় তাঁর নাম যখন ঘোষণা হল,তখন করতালিতে ফেটে পড়ল গোটা চত্বর | তিনি ওড়িশার ‘ মোদি ‘ বলেই অধিক পরিচিত | নাম প্রতাপ চন্দ্র সারেঙ্গী | বালসোরের ৬৪ বছর বয়সী প্রথমবার নির্বাচিত এই সাংসদ নাকি এবারের প্রচার সেরেছেন তাঁর সাইকেল নিয়ে | আক্ষরিক অর্থে কুঁড়ে ঘর থেকে যাত্রা শুরু করে বালাসোরের প্রতিটি ভোটারের ঘরে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি তাঁর প্রবল প্রতিপক্ষকে পরাজিত করতে | তাঁর লড়াইটা শুরু করেছিলেন বহুদিন আগে | ওড়িশা বজরং দলের নেতৃত্ব দেওয়ার সময় তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর সহ একাধিক অপরাধমূলক মামলা রুজু রয়েছে | তার অনেকগুলো বিজেপি-বিজেডির জোট সরকারের আমলে বলে জানা গিয়ে| প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় মন্ত্রীসভায় তাঁর নাম যখন ঘোষণা হল,তখন করতালিতে ফেটে পড়ল গোটা চত্বর| তিনি ওড়িশার নরেন্দ্র মোদি বলেই অধিক পরিচিত| নাম প্রতাপ চন্দ্র সারেঙ্গী | বালসোরের ৬৪ বছর বয়সী প্রথমবার নির্বাচিত এই সাংসদ নাকি এবারেও প্রচার সেরেছেন তাঁর সাইকেল নিয়ে | আক্ষরিক অর্থে কুঁড়ে ঘর থেকে যাত্রা শুরু করে বালাসোরের প্রতিটি ভোটারের ঘরে পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি তাঁর প্রবল প্রতিপক্ষকে পরাজিত করতে | তাঁর লড়াই টা শুরু করেছিলেন বহুদিন আগে | ওড়িশা বজরং দলের নেতৃত্ব দেওয়ার সময় তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি সম্পত্তি ভাঙচুর সহ একাধিক অপরাধমূলক মামলা রুজু রয়েছে | তার অনেকগুলো বিজেপি-বিজেডির জোট সরকারের আমলে বলে জানা গিয়েছে | তাঁর মধ্যে সব চেয়ে মারাত্মক অভিযোগ ১৯৯৯সালের জানুয়ারি মাসে গ্রাহাম স্টেইন এর সঙ্গে তাঁর দুই শিশু পুত্রকে জীবন্ত দগ্ধ করার জন্য অভিযোগের আঙুল ওঠে সেই সময় বজরং দলের মুখ্য নেতা বর্তমান সাংসদ ও মন্ত্রী প্রতাপ চন্দ্রের বিরুদ্ধে | এপর্যন্ত জাতীয় সব সংবাদ মাধ্যম ঠিকই খবর করেছেন | সেই সময় ওড়িশার আদিবাসীদের খ্রীষ্টান মিশনারিরা জোর করে খ্রীষ্টান ধর্মে জোর করে রূপান্তরিত করছে, এই অভিযোগে কট্টর হিন্দুত্ববাদী ও খ্রীষ্টান মিশনারিদের মধ্যে চলা অশান্তির ফায়দা নিয়ে তাঁকে ফাঁসানোর অবিযোগি তোলেন প্রতাপ চন্দ্র সারেঙ্গি | প্রথম থেকেই গ্রাহাম সাহেব ও তাঁর পুত্রদ্বয়ের খুনে তিনি জড়িত নন বলে স্পষ্ট করে দেন বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে | এই ঘটনায় দেশ তোলপাড় হয় | সঠিক দিশায় তদন্ত হওয়ার জন্য তৈরি করা হয় ওয়াধা কমিশন | সেই কমিশনের তত্ত্বাবধানে দারা সিংকে দোয়ী সাব্যস্ত করা হয় | আর এই ঘটনার সঙ্গে বজরং দলের কোন সম্পর্ক নেই তা বলে ওয়াধা কমিশন |

এখন প্রশ্ন, সংবাদ মাধ্যম হিসেবে অর্ধসত্য খবর ছাপার দায় কে নেবে ? প্রতাপ চন্দ্রের মত ব্যাক্তিত্ব ক্যাবিনেট মন্ত্রী হওয়াতেই হাত গুটিয়ে যারা নেমে পড়েছেন তাঁকে কালিমালিপ্ত করতে, তাঁদের অনেকেই বাম আদর্শে অনুপ্রাণিত বলে জানা যায়| রাজ্য ও দেশে ভারডুবির পর তাঁদের কি এখন অর্ধসত্যকে সামনে নিয়ে এসে প্রতিবেশী রাজ্যের মানুষকে বিভ্রান্ত করাই একমাত্র কাজ | সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন তুলছেন কেউ কেউ | কট্টর হিন্দুত্ববাদী হলেই তাঁকে খুনী তকমা দেওয়ার প্রবণতা অন্তত জাতীয় সংবাদ মাধ্যমের শোভা পায়না বলেই মত অনেকের | তাঁর মধ্যে সব চেয়ে মারাত্মক অভিযোগ ১৯৯৯সালের জানুয়ারি মাসে গ্রাহাম স্টেইন এর সঙ্গে তাঁর দুই শিশু পুত্রকে জীবন্ত দগ্ধ করার জন্য অভিযোগের আঙুল ওঠে সেই সময় বজরং দলের মুখ্য নেতা বর্তমান সাংসদ ও মন্ত্রী প্রতাপ চন্দ্রের বিরুদ্ধে | এপর্যন্ত জাতীয় সব সংবাদ মাধ্যম ঠিকই খবর করেছেন | সেই সময় ওড়িশার আদিবাসীদের খ্রীষ্টান মিশনারিরা জোর করে খ্রীষ্টান ধর্মে জোর করে রূপান্তরিত করছে,এই অভিযোগে কট্টর হিন্দুত্ববাদী ও খ্রীষ্টান মিশনারিদের মধ্যে চলা অশান্তির ফায়দা নিয়ে তাঁকে ফাঁসানোর অবিযোগি তোলেন প্রতাপ চন্দ্র সারেঙ্গি | প্রথম থেকেই গ্রাহাম সাহেব ও তাঁর পুত্রদ্বয়ের খুনে তিনি জড়িত নন বলে স্পষ্ট করে দেন বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে | এই ঘটনায় দেশ তোলপাড় হয়| সঠিক দিশায় তদন্ত হওয়ার জন্য তৈরি করা হয় ওয়াধা কমিশন | সেই কমিশনের তত্ত্বাবধানে দারা সিংকে দোয়ী সাব্যস্ত করা হয় | আর এই ঘটনার সঙ্গে বজরং দলের কোন সম্পর্ক নেই তা বলে ওয়াধা কমিশন |

এখন প্রশ্ন, সংবাদ মাধ্যম হিসেবে অর্ধসত্য খবর ছাপার দায় কে নেবে ? প্রতাপ চন্দ্রের মত ব্যাক্তিত্ব ক্যাবিনেট মন্ত্রী হওয়াতেই হাত গুটিয়ে যারা নেমে পড়েছেন তাঁকে কালিমালিপ্ত করতে, তাঁদের অনেকেই বাম আদর্শে অনুপ্রাণিত বলে জানা যায়| রাজ্য ও দেশে ভারডুবির পর তাঁদের কি এখন অর্ধসত্যকে সামনে নিয়ে এসে প্রতিবেশী রাজ্যের মানুষকে বিভ্রান্ত করাই একমাত্র কাজ | সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন তুলছেন কেউ কেউ | কট্টর হিন্দুত্ববাদী হলেই তাঁকে ‘খুনী’ তকমা দেওয়ার ভয়ঙ্কর প্রবণতা অন্তত জাতীয় সংবাদ মাধ্যমের শোভা পায়না বলেই মত অনেকের|

ছবি সৌজন্য: ট্যুইটার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here